সোমবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২০

দুর্গাপুজো উপলক্ষ্যে 'নবনীড়'-এর আবাসিকদের সঙ্গে সাক্ষা‍ৎ করলেন মুখ্যমন্ত্রী

 


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: প্রতি বছরের মতো এবছরও দুর্গাপুজো উপলক্ষ্যে আলিপুরের বৃদ্ধাবাস 'নবনীড়'-এর আবাসিকদের সঙ্গে সাক্ষা‍ৎ করে এলেন মুখ্যমন্ত্রী। করোনা আবহে প্রবীণ মানুষদের সানিধ্যে যাওয়াটা একটু ঝুঁকির। কারণ মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তা আধিকারিক তথা বাইরের মানুষদের থেকে সংক্রমিত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে তাঁদের। তাই এবার সরাসরি তাঁদের সানিধ্যে না গিয়েও নবনীড়ের বাসিন্দাদের সঙ্গে সাক্ষা‍ৎ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার বিকেল পাঁচটা নাগাদ নবনীড়ে পৌঁছন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর সঙ্গে ছিলেন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম ও ইন্দ্রনীল সেন। নবনীড়ের লনে মুখ্যমন্ত্রীর বসার জন্য ব্যবস্থা করা হয়। আর আবাসিকরা ঘরের ভিতর থেকেই মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষা‍ৎ করেন। মুখ্যমন্ত্রী প্রায় সকলের জন্যই সামাণ্য উপহার নিয়ে যান। তবে এবার আর একসঙ্গে বসে আড্ডা সম্ভব হয়নি। তাঁদের নিরপত্তার কথা ভেবেই নির্দিষ্ট দূরত্ব থেকেই কথা বলেন তিনি। মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন এদিন মুখ্যমন্ত্রীর কথা ও সুরে 'পুজো এল' গানটি গেয়ে শোনান। এরপর মুখ্যমন্ত্রী নিজে মাইক তুলে নেন। তিনি বলেন, করোনা আবহে আপনাদের সঙ্গে সাক্ষা‍ৎটা একটু ঝুঁকির। তবুও আপনাদের জন্য মন টানছিল তাই চলে এলাম।আপনারা সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন। প্রতি বছরের পুজোয় এবার আপনাদের পুজো প্যান্ডেলে ঘুরতে নিয়ে যেতে পারব না। এ বছরটা ঘরে বসেই পুজো দেখুন। আগামী বছর আবার একইরকম আড্ডা হবে। এদিন তিনি মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকে নির্দেশ দেন, নবনীড়ের প্রাঙ্গণেই একটা দুর্গামূর্তি স্থাপনের ব্যবস্থা করতে বলেন। মূলত একে সামানে রেখেই এবছর আপনারা আনন্দ করুন। আগামী বছর আবার পুজো ঘুরে দেখা যাবে। মাত্র আধঘণ্টা থেকে তিনি নবনীড় থেকে বেড়িয়ে যান।

উল্লেখ্য, প্রতিবছর দুর্গাপুজোয় নবনীড়ে  প্রবীণ নাগরিকদের সঙ্গে সময় কাটান মুখ্যমন্ত্রী। এবার করোনা আবহে সাক্ষাতের কৌশল বদলালেও প্রতিবছরের রুটিন বদলালো না।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only