শনিবার, ৩১ অক্টোবর, ২০২০

চিতাবাঘের আতঙ্কে ঘরবন্দী উত্তরবঙ্গের ফাঁসিদেওয়া


রুবাইয়া,জলপাইগুড়ি:একদিকে করোনা আর একদিকে চিতাবাঘের আতঙ্ক। দুইয়ে মিলে নাজেহাল অবস্থা উত্তরবঙ্গের শিলিগুড়ি মহকুমার ফাঁসিদেওয়ায়।উত্তরবঙ্গে চিতাবাঘের লোকালয়ে আসার ঘটনা নতুন কিছু নয়।তবে এবারে চিতাবাঘের হামলায় এক মহিলা জখম হওয়ার পর থেকেই চিতাবাঘের আতঙ্কে ঘুম উড়েছে এলাকাবাসীর।বর্তমানে চিতাবাঘের হানায় জখম মহিলা স্বপ্না কানু  ফাঁসিদেওয়া গ্রামীণ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।শিলিগুড়ি মহকুমার তরাই এলাকার চা বাগানগুলিতে চিতাবাঘ প্রায়শই দেখা যায়। চা বাগানের নালাগুলিতে চিতাবাঘ ডেরা বাঁধে। নকশালবাড়ি,খড়িবাড়ি,ফাঁসিদেওয়ায় বিভিন্ন চা বাগান এলাকায় এর আগেও বহুবার চিতাবাঘের খোঁজ মিলেছে। গোটা এলাকায় বাঁশঝাড়-চা বাগান এবং টানা ক্যানাল থাকায় চিতাবাঘ সহজেই আসতে পারে।উল্লেখ্য বুধবার গভীর রাত থেকে চিতাবাঘের প্রবেশের খবরে চাঞ্চল্য ছড়ায়  ফাঁসিদেওয়া থানা এবং বিডিও অফিস সংলগ্ন ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী পুরোনো হাটখোলা এলাকায় । অন্যদিকে খবর পেয়ে রাতেই এলাকায় পৌৗঁছায় ফাঁসিদেওয়া থানার পুলিশ এবং ঘোষপুকুর বন বিভাগের কর্মীরা। কিন্তু তল্লাশি চালিয়েও তাঁরা চিতাবাঘটিকে ধরতে পারেননি। এদিন সকাল থেকেই ফের এলাকায় বনকর্মীরা গিয়ে তল্লাশি অভিযান চালালেও চিতাবাঘ উদ্ধার করা হয়নি। এদিকে স্থানীয় অনিল েবাসের দাবি বিকেলে ফাঁসিদেওয়া উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের কাছে চিতাবাঘটিকে দেখা যায়। ইতিমধ্যেই ওই এলাকায় স্থানীয়রা বাঘ ধরার জন্য খাঁচা পাতার দাবি তুলেছেন।শুধু গ্রামবাসীরাই নয় মহানন্দা নদী ধারে বাংলাদেশ সীমান্তে প্রহরারত বিএসএফ জওয়ানদের মধ্যে অনেকেই ওই বাঘটিকে কিছুদিন ধরে ঘোরাফেরা করতে দেখতেন। কিন্তু স্থানীয়দের মধ্যে আতঙ্ক ছড়ানোর ভয়ে তাঁরা বিষয়টি চেপে যান। কিন্তু শনিবার রাতে ওই চিতাবাঘটি গ্রামে প্রবেশ করে বলে স্থানীয়রা জানায়।ওই এলাকায় প্রায় দুশো পরিবারের বাস।চিতাবাঘ আসার খবরে রাতে ঘুমাতেও ভয় পাচ্ছেন এলাকাবাসীরা। কাজে বেরোতেও আর কেউ ঘরের বাইরে পা রাখতে চাইছেন না।একপ্রকার ঘরবন্দী হয়েই রয়েছে পুরো এলাকা। বিভিন্ন জায়গায় চিতাবাঘের পায়ের ছাপও দেখেন এলাকাবাসী। তবে বনদপ্তর থেকে বলা হয় রাতে শধ বাজি ফাটানোয় জঙ্গলে চলে গিয়েছে চিতাবাঘটি।ঘোষপুকুর বন দপ্তরের রেঞ্জার সোনম ভুটিয়া জানান এদিন সকালে এলাকায় তল্লাশি চালানো হয়েছে। চিতাবাঘটিকে আর দেখা যায়নি। তিনি আরও জানান প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে চিতাবাঘটি লোকালয় ছেড়ে জঙ্গলের দিকে পালিয়ে গিয়েছে।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only