সোমবার, ১৬ নভেম্বর, ২০২০

২০০ কোটির জিএসটি জালিয়াতি, ধৃত চার



বেঙ্গালুরু, ১৬ নভেম্বরঃ গত কয়েক সপ্তাহে ২০০ কোটি টাকার জালিয়াতি মামলায় ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এই চার ব্যক্তি কয়েক বছরে নকল পরিষেবা দেওয়ার জন্য চিনা জনগণ এবং বহুজাতিক সংস্থার নামে ১০০০ কোটি টাকার নকল চালান তৈরি করেছিলেন বলে অভিযোগ। সম্প্রতি জিএসটি গোয়েন্দা বিভাগের বেঙ্গালুরু শাখা শহরে জালিয়াতির একটি বড় মামলা ফাঁস করেছে। মুম্বইয়ের চিনা সংস্থার সঙ্গে শহরে বহু জায়গায় অভিযান চালিয়ে জাল নথি বাজেয়াপ্ত করে। এখনও জালিয়াতির তদন্ত চলছে। গোপন সূত্রে জানা গিয়েছে, দিল্লির বাসিন্দা কমলেশ মিশ্র জাল সংস্থার নামে ৫০০ কোটি টাকার চালান তৈরি করেন। 


কমলেশ মিশ্র গরিব মানুষের নামে ২৩টি কোম্পানি তৈরি করেন যার মধ্যে কিছু প্যান এবং আধার কার্ড ছিল বেঙ্গালুরুর। ‘উনি নিজের কাগজপত্র ব্যবহার করে নিজের নামে কোম্পানি তৈরি করে ৮০ কোটি টাকার নকল চালান তৈরি করেন।’ বেঙ্গালুরুর এক আধিকারিক বলেন, আমরা অভিযান চালিয়ে তাদের খোঁজ পেয়েছি যারা মিশ্রাকে জাল সংস্থার কর্ণধার তৈরি করেছেন। জিএসটি জালিয়াতির প্রমাণ পাওয়ার পর আমরা তাদের গ্রেফতার করেছি।’ 


গোয়েন্দা বিভাগের এক আধিকারিক বলেন, ‘বেঙ্গালুরুর ব্যবসায়ী বিয়ালডুগু কৃষ্ণৈয়া চিনা কয়েকটি সংস্থার সঙ্গে মিলে ‘জাম্প মাংকি প্রমোশন ইন্ডিয়া লিমিটেড নামে একটি সংস্থা তৈরি করেন।  এই সংস্থার মাধ্যমেই কৃষ্ণা ভারতের কয়েকটি ভালো সংস্থার জন্য জাল চালান জারি করেন যাতে দাবি করা হয়, সংস্থায় উনি পণ্য-পরিষেবা বিক্রয় করেছেন। এই জালিয়াতিতে তাঁর সংস্থা চায়না কনস্ট্রাকশন সৌসেম ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেড এবং কালিক কনস্ট্রাকশনের মাধ্যমে ৫৩ কোটি টাকা লাভ হয়। ’


সম্প্রতি মুম্বইয়ে কিছু চিনা সংস্থায় অভিযান চালিয়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। গ্রেফতারির পরে কৃষ্ণাকে বেঙ্গালুরু জেলে আনা হয়েছে। বিদেশি নাগরিকদের সঙ্গে টাকা-পয়সার লেনদেনের তদন্ত চলছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only