শুক্রবার, ৬ নভেম্বর, ২০২০

যতদিন সংবিধান আছে, ততদিন হিন্দু বা মুসলিম কেন্দ্রিক রাষ্ট্রের প্রশ্ন নেই‌: অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি কামাল পাশা


তিরুবনন্তপুরম, ৬ নভেম্বরঃ
যতদিন ভারতের সংবিধানে ধারা ২৫ এবং ধারা ২৬ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে, ততদিন হিন্দু-কেন্দ্রিক কিংবা মুসলিম-কেন্দ্রিক রাষ্ট্রের কোনও প্রশ্নই ওঠে না। এই মন্তব্য করেছেন, ২০১৮ সালে কেরালা হাইকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি কামাল পাশা। তিনি সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ভারত রাষ্ট্রের ভিত্তি হল ভারতের সংবধান। যতদিন ভারতকে শাসন করা হবে সংবিধানের মাধ্যমে, ততদিন মুসলিম সম্প্রদায় কিংবা অন্য কোনও সম্প্রদায়ের কোনও সমস্যা হওয়ার কথা নয়। 


বিচারপতি পাশা বলেন, দেশের সংবিধানে ইন্ডিয়া অথবা ভারত বলে দেশকে সম্বোধন করা হয়েছে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মতো ব্যক্তিরা দেশকে ‘হিন্দুস্থান’ বলে সম্বোধন করে থাকেন। হয়তো দেশকে জেনেশুনেই ‘হিন্দুস্থান’ বলে সম্বোধন করা হয় মানুষের অবচেতন মনে এক বিশেষ প্রভাব বিস্তারের উদ্দেশ্যে। বিচারপতি পাশা বলেন, মুসলিম সম্প্রদায় সহ দেশের পশ্চাৎপদ শ্রেণির জীবনযাত্রার মান উন্নত হয়েছে। এর মূল কারণ হল তাদের মধ্যে শিক্ষার বিস্তার। মুক্তির সবচেয়ে বড় হাতিয়ার হল শিক্ষা। 


তাই দেশবাসীর উচিত তাদের শিশুদের প্রাথমিকতার ভিত্তিতে শিক্ষিত করে তোলা। যারা পশ্চাৎপদ শ্রেণির অন্তর্ভুক্ত তাদের উন্নতির জন্য সরকারকে আবশ্যিক নীতি প্রণয়ন করতে হবে। ব্যক্তিগত কথা বলতে গিয়ে বিচারপতি পাশা বলেন, তাঁর শিক্ষাজীবনে স্কুল-কলেজে তিনি মেধার ভিত্তিতে জায়গা পেয়েছিলেন। আমার মা-বাবা দু’জনেই শিক্ষক ছিলেন। তাই আমি মুসলিমদের জন্য সংরক্ষণের কোনও সুবিধা পাইনি। কারণ সংরক্ষণ দেওয়া হয় পরিবারের আর্থিক সংগতির মানদণ্ডে। কিন্তু তিনি এও বলেন, সংরক্ষণের সুবিধা পেয়ে মুসলিম এবং এজাভাস (হিন্দু) সম্প্রদায়ের বহু ছেলে-মেয়ে লাভবান হয়েছে। কারণ, যে কোনও সম্প্রদায়ের পশ্চাৎপদ শ্রেণি এবং অনুন্নত শ্রেণির ছেলে-মেয়েদের সংরক্ষণের প্রয়োজন আছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only