শনিবার, ২১ নভেম্বর, ২০২০

শ্বাসরোধ করে খুন হয়েছে একবালপুরের তরুণী , মাদকাসক্তির কারণে প্রাণ গেল কিনা খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা

 


পুবের কলম প্রতিবেদক: ­বৃহস্পতিবার ভোরে একবালপুরে উদ্ধার হওয়া তরুণী খুনের ঘটনায় একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসছে। স্থানীয় সূত্রে দাবি, মৃত তরুণী সাবা খাতুন মাদকসক্ত ছিল। কয়েকমাস আগে পর্যন্ত সে নেশামুক্তি কেন্দ্রে ভর্তি ছিল। সেখান থেকে ফিরেও নাকি সাবার মাদকাসক্তি কাটেনি। আর সেই কারণেই কোনওভাবে কারও সঙ্গে শত্র&তা থেকে খুন হয়ে গিয়ে থাকতে পারে। তবে স্থানীয়রা সাবাকে চিনত ডাকাবুকো এবং প্রতিবাদী হিসেবেই। রাস্তায় কেউ যদি কোনওভাবে কুকথা বলত বা কেউ কুনজরে দেখত, তাতে সাবা প্রতিবাদ করত। রুখে দাঁড়াত। এমনকি মারপিট করতে দ্বিধাবোধ করত না। তাই অনেকেই সাবাকে এড়িয়ে চলত।

এদিকে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে,প্রাথমিক ময়নাতদন্তের রিপোর্ট বলছে, শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছে। অর্থাৎ পুলিশ প্রথম থেকেই খুনের যে তত্ত্ব খাড়া করেছে তাতে শিলমোহর পড়ল। এছাড়াও মৃতার শরীরে বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়। তরুনীর গলায় পাওয়া যায় দাগ। বাঁ হাতের কনুইতেও ক্ষতচিহ্ন পাওয়া যায়। যদিও কে বা কারা ওই তরুণীকে খুন করেছে? কেন খুন করেছে তা এখনও স্পষ্টভাবে পুলিশ কিছু জানায়নি। এখনও পর্যন্ত এই কেসে কোনও গ্রেফতারও হয়নি। তবে সাবার কয়েকজন বান্ধবী ও প্রতিবেশীদের জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ। উল্লেখ্যপারিবারিক নানা কারণে অবসাদ ছিল, সঙ্গে ছিল মাদকাসক্তি। অল্প বয়সেই সাবার মা মারা যায়। ছোট থেকে সাবা তার দিদার কাছে থাকত। কিন্তু মাদকাসক্তির কারণে সেখানেও অশান্তি। শেষ পর্যন্ত গত কয়েকমাস ধরে  বাঙালি ওয়ার্সি লেনে এক বান্ধবীর বাড়িতে সাবা থাকছিল। এরপর বৃহস্পতিবার ভোরে বস্তাবন্দি অবস্থায় রহস্যজনকভাবে সাবার মৃতদেহ উদ্ধার হয়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only