মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২০

লড়াই না সন্ধি? শুভেন্দু-সৌগত বৈঠকের ফলাফল এখনও অমিল


পুবের কলম প্রতিবেদকঃ
এই মুহূর্তে তৃণমূল কংগ্রেসে শুভেন্দু অধিকারীর অবস্থান কোনও দিকে তা সবথেকে আলোচিত বিষয়। শহরে কান পাতলে শোনা যাচ্ছে, নাকি দল ত্যাগ করতে পারেন এই দাপুটে নেতা। তবে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস এখন সে কথা মানতে নারাজ। যদিও খোদ শহর কলকাতাতেই যখন শুভেন্দু অধিকারীর ছবি দিয়ে ‘আমরা দাদার অনুগামী’ পোস্টার নিয়ে তৃণমূল শীর্ষনেতৃত্ব অস্বস্তিতে। সংবাদমাধ্যমের একাংশের রটনা শুভেন্দুর অবস্থান নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি করেছে। কিন্তু দলনেত্রী হিসাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কখনোই শুভেন্দুর অবস্থান নিয়ে ম‍ুখ খোলেননি। 


অন্যদিকে, শুভেন্দু অধিকারীও নিজে কখনোই বলেননি যে তিনি দল ছাড়ছেন। তবে দীর্ঘদিন তাঁর দলীয় কর্মসূচি এড়িয়ে যাওয়া এবং কোথাও কোথাও দাদার অনুগামীদের নিয়ে তাঁর বৈঠক-শুভেন্দু অধিকারীর দল ত্যাগের জল্পনা বাড়িয়েছে। এমতাবস্থায় তৃণমূল নেতৃত্ব তৎপর এই গুরুত্বপূর্ণ শীর্ষনেতাকে দলে ধরে রাখতে। দলের তরফে বারবার বলা হয়েছে শুভেন্দু অধিকারী তৃণমূল কংগ্রেসের গুরুত্বপূর্ণ পদাধিকারী, তিনি দলের গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রীও। কিন্তু শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ মহলের একাংশ ঠারেঠোরে বুঝিয়ে দিয়েছেন, দলে তাকে সঠিকভাবে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে না। মর্যাদা নিয়ে কাজ করতে পারছেন না তিনি। এ দিকে দলের তরফে শুভেন্দু জল্পনার ইতি ঘটাতে আগেও উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। 


অতীতে দলের দুই সাংসদ তার সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন। এমনকী শুভেন্দুর সঙ্গে কথা বলতে তাঁর বাড়িতেও যান তৃণমূলের ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোর। এমতাবস্থায় সোমবার আরও একবার শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে বৈঠক করলেন দমদমের সাংসদ সৌগত রায়। অনেকেই বলছেন, এই বৈঠকের পরই শুভেন্দু কোন দিকে থাকবেন তা স্পষ্ট হয়ে যেতে পারে। যদিও এ দিন এই বৈঠকের পর এই দুই রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের মধ্যে কী আলোচনা হয়েছে, তা নিয়ে প্রকাশ্যে ম‍ুখ খোলেননি কেউই। তবে দলীয় সূত্র থেকে যেটুকু জানা গিয়েছে, দল ছাড়ার বিষয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নেননি শুভেন্দু অধিকারী। 


তবে দলের একাংশের কাজকর্ম নিয়ে তিনি ক্ষুব্ধ। এ দিন সেই ক্ষোভের কথা এই প্রবীণ নেতার কাছে তিনি গোপন করেননি বলে জানা গিয়েছে। পাশাপাশি এ দিন সৌগত রায় স্পষ্ট ভাষায় শুভেন্দু অধিকারীকে জানিয়ে দিয়েছেন, দলনেত্রী তথা রাজ্যের ম‍ুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চান শুভেন্দু আগের মতোই সক্রিয় হন। বরং তৃণমূল পরিবার মনে করে, তিনি দলের অবিচ্ছেদ্য অংশ। এমতাবস্থায় শুভেন্দু অধিকারী তাঁর কয়েকটি বক্তব্যের কথা প্রবীণ সংসদকে জানিয়েছেন। দলীয় সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, বিষয়টি নিয়ে দলনেত্রীর সঙ্গে কথা বলারও আশ্বাস দিয়েছেন সৌগত রায়।


এ দিন শুভেন্দু অধিকারী নিয়ে ‘সন্ধি’র একটা আভাস মিলেছে রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়নমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের কথাতেও। নন্দীগ্রামে সূর্যোদয়ের বর্ষপূর্তির দিন ভূমি রক্ষা কমিটির সভার পালটা সভায় ফিরহাদ হাকিমই ছিলেন প্রধান বক্তা। এ দিন কারও নাম না করে তিনি বলেছেন, রাজনীতিতে ক্ষোভ-বিক্ষোভ থাকতেই পারে। তবে সকলকে নিয়েই চলতে হয়। ফিরহাদের সকলকে নিয়ে চলার বার্তাকে ইতিবাচক হিসেবে দেূছে রাজনৈতিক মহল। মনে করা হচ্ছে, দলনেত্রীর সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমেই হয়তো শুভেন্দু অধিকারীর অভিমান ভাঙতে চলেছে। এ দিন দলের তরফে জানানো হয়েছে, আজ, অর্থাৎ মঙ্গলবার দুপুর দু’টোয় তৃণমূল ভবনে সাংবাদিক সম্মেলন করবেন দমদমের সাংসদ সৌগত রায়। এই সাংবাদিক বৈঠকে শুভেন্দু নিয়ে আদৌও কোনও সুখবর থাকে কি না, সেটাই এখন দেখার।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only