শনিবার, ২১ নভেম্বর, ২০২০

ধান সংগ্রহের কায়দায় আলু সংগ্রহের ভাবনা রাজ্য সরকারের



আবদুল ওদুদ

এই মুহূর্তে রাজ্যবাসী বাজারে গিয়ে আলু ও পেঁয়াজ কিনতে নাভিশ্বাস উঠছে। সরকার নিয়োজিত টাক্সফোর্সকে নামিয়েও এই দাম নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না। এমতাবস্থায় ন্যায্য মূল্যে আলু সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দিচ্ছে কৃষি বিপনণ দফতর। তাদের সুফল বাংলায় মিলছে বাজার থেকে অনেক কম দামে আলু। এই অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নিয়ে এক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। 


এ বছর ধান সংগ্রহের কায়দায় আলু সংগ্রহ করবে রাজ্য। এই আলু সংকট কালে সাধারণ মানুষের হাতে ন্যায্যমূল্যে তুলে দেওয়া হবে। আসলে কেন্দ্রীয় সরকারের অত্যাবশ্যকীয় আইন সংশোধনের ফলে আলুর মজুতদারির উপর রাশ টানা যাচ্ছে না। এর ফলে সরকার কিছুটা হলেও বিপাকে পড়েছে। তাই রাজ্য রাজ্য সরকারের তরফে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে এবার নতুন আলু উঠলে প্রয়োজনে কোল্ড স্টোরেজ লিজ নিয়ে যতটা সম্ভব আলু সংগ্রহ করে রাখা হবে।  


রাজ্যের কৃষিও বিপণন মন্ত্রী তপন দাশগুপ্ত জানান, কেন্দ্রের আইনে ফড়েরাজ অব্যাহত রয়েছে। আর তার ফলে স্বেচ্ছাচারিতা চলছে। এই স্বেচ্ছাচারিতা দূর করতে হবে। তার না হলে চাষিরা ন্যায্যমূল্যে আলু পাবেন না। এই ফড়েরাজ বন্ধ করতেই ধান সংগ্রহের কায়দায় আলু সংগ্রহ করার ভাবনা নিয়েছে রাজ্য সরকার। তিনি আরও বলেন, নতুন আলু উঠলেই রাজ্য কৃষিতে বিপণন বিভাগ আলু সংগ্রহ করে সুফল বাংলার মাধ্যমে সাধারণ ক্রেতার হাতে তুলে দেবেন।


তিনি আরও বলেন, কেন্দ্রে আইনের ফলে ফড়েরা হিমঘরগুলিতে আলু মজুত করে রেখে বাজারে আলুর ঘাটতি তৈরি করে। ফলে লাফিয়ে লাফিয়ে দাম বেড়ে নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। মন্ত্রী বলেন, রাজ্য সরকার চাষিদের আর্থিক বিকাশ ঘটাতে ধান সংগ্রহ করছে কয়েক বছর থেকে। আর এই উদ্যোগে লাভবান হয়েছেন চাষিরা। এবার সেই পথে হেঁটেই আলু সংগ্রহের ভাবনা নিয়েছে। 


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only