রবিবার, ৮ নভেম্বর, ২০২০

দেনার দায়ে জ্যান্ত পুড়িয়ে মারা হল আদিবাসী যুবককে, এ যেন অপরিকল্পিত লকডাউনের শিকার



পুবের কলম প্রতিবেদকঃ আবারও এক নৃশংস ঘটনার সাক্ষী হল গোটা দেশ। মাত্র পাঁচ হাজার টাকা ফেরাতে না পারায় বছর বত্রিশের এক আদিবাসী যুবককে জ্যান্ত পুড়িয়ে মারা হল। ভোপাল থেকে ২১৪ কিলোমিটার উত্তরে গুনা জেলায় ঘটেছে এই ভয়াবহ ঘটনাটি। নিহত বিজয় সাহারিয়া এই জেলার উকওয়াড় খুরদ গ্রামের বাসিন্দা। দেশজোড়া লকডাউনের সময় তিনি ওই টাকা ধার নিয়েছিলেন। কিন্তু উপার্জন না থাকায় সেই টাকা ফিরিয়ে দিতে পারেননি। আর তার ফলেই পুড়িয়ে মারা হল তাঁকে। যদিও জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল বিজয়কে। শুরু হয়েছিল চিকিৎসাও। কিন্তু শেষ রক্ষা হল না। ওই গ্রামেরই বাসিন্দা অভিযুক্ত রাধেশ্যাম লোধাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাঁর বিরুদ্ধে আনা হয়েছে ৩০২ ধারা ও তফশিলি জাতি ও উপজাতি (প্রিভেনশন অফ অ্যাট্রোসিটি) আইনের প্রাসঙ্গিক ধারা। এমনটাই জানালেন গুনার পুলিশ সুপার রাজেশ কুমার সিং। তিনি বলেছেন কারখানা শ্রমিক বিজয় সাহারিয়া ৫ হাজার টাকা ধার নিয়েছিলেন রাধেশ্যাম লোধার থেকে। রাধেশ্যাম চাষবাস করেন। তবে তিনি সুদে টাকাও খাটান। কেন্দ্র সরকার অপরিকল্পিতভাবে লকডাউন ঘোষণা করায় বহু মানুষের মতো বিপাকে পড়েন বিজয়। লোধার জমিতে কাজ করতে শুরু করেন বিজয়। যখন তিনি মজুরি চান তখন লোধা তাঁকে ঋণের টাকা দিতে বলেন। দেনার টাকা কেটে নিয়ে বাকি মজুরি দিতে অনুরোধ করেন বিজয় কিন্তু লোধা অনড় ছিল। শুক্রবার রাতে এই নিয়ে তাঁদের মধ্যে বচসা বাঁধে। বিজয়কে পেটাতে শুরু করে লোধা। তারপর বাড়ি থেকে কেরোসিন এনে বিজয়ের গায়ে ঢেলে দিয়ে আগুন জ্বালিয়ে দেন। গ্রামবাসীরা সেখানে হাজির হয়ে আগুন নেভাতে চেষ্টাও করেন। যাইহোক লোধা তাঁর অপরাধ স্বীকার করেছেন। জানালেন গুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার টি এস বাঘেল। বিজয়ের শেষকৃত্য সম্পন্ন করতে তাঁর পরিবারকে কুড়ি হাজার টাকা দিয়েছেন গুনার কালেক্টর। বিজয়ের পরিবারকে সাড়ে আট লক্ষ টাকা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন কালেক্টর।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only