শুক্রবার, ২০ নভেম্বর, ২০২০

বেঙ্গালুরু দাঙ্গা­:এসডিপিআই ও পিএফআইর চারটি অফিস সহ ৪৩ টিরও বেশি স্থানে তল্লাশি অভিযান এনআইএ-র



পুবের কলম প্রতিবেদকঃ জাতীয় তদন্ত সংস্থা (এনআইএ) বেঙ্গালুরু দাঙ্গায় জড়িত থাকার অভিযোগ তুলে পপুলার ফ্রন্ট অফ ইন্ডিয়া ও সোশ্যাল ডেমোক্রেটিক পার্টি অফ ইন্ডিয়ার (এসডিপিআই) চারটি অফিস সহ বুধবার ৪৩টিরও বেশি স্থানে তল্লাশি অভিযান চালিয়েছে।

এনআইএ জানিয়েছে, অভিযানের সময় তারা ছুরি এবং লোহার রডের মতো অস্ত্রের পাশাপাশি এসডিপিআই এবং পিএফআই সংগঠন সম্পর্কিত কিছু কাগজপত্র ও সামগ্রী বাজেয়াপ্ত করেছে।

এনআইএর জারি করা বিবৃতি অনুসারে, ১১ আগস্ট বেঙ্গালুরু শহরের দু’টি অঞ্চলে যে দাঙ্গা হয়েছিল তা নিয়ে বেঙ্গালুরু শহরের ৪৩ টি জায়গায় অভিযান চালানো হয়।

এতে বলা হয়েছে, যে দাঙ্গার ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ২৯৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ডিজেহলি থানা এলাকায় দাঙ্গার ঘটনায় ১২৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল এবং বাকি ১৬৯ জন গ্রেফতার হয়েছে কেজিহলি থানা এলাকার দাঙ্গার সঙ্গে।

এনআইএর বিবৃতিতে বলা হয়েছে যে, দাঙ্গাগুলির ফলে আশপাশের অঞ্চলে ভয় ও আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। ১১ আগস্ট, কংগ্রেস বিধায়ক আর আখন্দ শ্রীনিবাস মূর্তির ভাগ্নে নবীন কুমারের একটি কুখ্যাত ফেসবুক পোস্টে ক্ষুব্ধ জনতার প্রতিবাদ মিছিল করে।

এ দিকে, এনআইএর সাথে সমান্তরালভাবে এই মামলাটির তদন্তকারী বেঙ্গালুরু পুলিশ, কংগ্রেস নেতা এবং প্রাক্তন বেঙ্গালুরু মেয়র আর সম্পথ রাজকে গ্রেফতার করেছে,যিনি হাসপাতাল থেকে ছাড়ার পরে বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরে পলাতক ছিলেন।



বেঙ্গালুরু পুলিশ এই মামলায় ৬০০টিরও বেশি এফআইআর নথিভুক্ত করেছিল এবং পরবর্তীতে অক্টোবরে ৮৫০ পৃষ্ঠার প্রাথমিক অভিযোগপত্র জমা দেয়।

ফেসবুক পোস্ট ঘিরে বেঙ্গালুরু শহরে গত মাসে ঘটে যাওয়া দাঙ্গার ঘটনার এখনও তদন্ত চালাচ্ছে এআইএ।

গত ১১ আগস্ট পুলকেশিনগরের কংগ্রেস বিধায়ক আর অখণ্ড শ্রীনিবাস মূর্তির এক আত্মীয়ের ফেসবুক ঘিরে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে বেঙ্গালুরু। কংগ্রেস বিধায়কের বাড়ি ভাঙচুর করার পাশাপাশি স্থানীয় থানাতেও হামলা চালায় উত্তেজিত জনতা। রাস্তার পাশে থাকা অসংখ্য গাড়িতে আগুনও ধরিয়ে দেওয়া বিক্ষোভাকারীরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ গুলি চালালে তিন বিক্ষোভকারীর মৃত্যু হয়। বিক্ষোভকারীদের তাণ্ডবে আরও একজন নিরীহ মানুষ প্রাণ হারান। আর সেই খবর ছড়িয়ে পড়তে গোটা শহরজুড়েই দাঙ্গা শুরু হয়ে যায়।

এসডিপিআইয়ের তিন শতাধিক নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়। এসডিপিআইয়ের অভিযোগ, যদিও জাতিদাঙ্গায় জড়িত গেরুয়া গুণ্ডাদের টিকি ছোঁয়ার সাহস দেখাতে পারেন বিজেপির আজ্ঞাবহ দাসে পরিণত হওয়া বেঙ্গালুরুর পুলিশ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only