বৃহস্পতিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০২০

৭২ ঘন্টার মন্ত্রী মেওয়ালাল ,দিতে হল ইস্তফা



পাটনা, ১৯ নভেম্বরঃ সদ্য শপথ নেওয়া নীতীশ মন্ত্রিসভার পিছু ছাড়ছে না বিতর্ক। নতুন সরকারের শিক্ষামন্ত্রী ডা. মেওয়ালাল চৌধুরী দুর্নীতির অভিযোগে বৃহস্পতিবারই ইস্তফা দিতে বাধ্য হলেন। তিনি ৭২ ঘণ্টাও মন্ত্রিপদে আসীন থাকতে পারলেন না। মেওয়ালাল বৃহস্পতিবারই নিজের দফতর বুঝে নেন। 

বিহারে নীতীশ কুমারের নেতৃত্বে এনডিএ সরকারে শিক্ষামন্ত্রীর পদ পাওয়া ডা. মেওয়ালালের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘নিযুক্তি’ ক্ষেত্রে অভিযোগ ছিল। এনিয়ে বুধবারই মুখ  খুলেছিলেন আরজেডি সুপ্রিমো লালুপ্রসাদ যাদব। তিনি তাঁর টু্ইটবার্তায় বলেছিলেন, ‘তেজস্বী ১০ লক্ষ বিহারবাসীকে চাকরি দেওয়াকে অগ্রাধিকার দিয়েছিল, সেখানে এনডিএ মেওয়ালালের মতো দুর্নীতিগ্রস্তকে মন্ত্রিসভায় নিয়ে আসাকে অগ্রাধিকার দিয়েছে। যে মেওয়ালালকে দুর্নীতি মামলায় কাল পর্যন্ত বিজেপি খুঁজছিল, সেই মেওয়া হাতে এসে যাওয়ার পর তারাই এখন মৌনী নিয়েছে।’ এরপর তেজস্বী যাদব-সহ আরজেপির অন্যান্য নেতারাও মেওয়ালালকে নিয়ে নীতীশ সরকারের বিরুদ্ধে বিষোদ্গার করতে ছাড়েননি। নবনিযুক্ত শিক্ষামন্ত্রী এরমধ্যেই বুধবার সন্ধেয় মু্যূমন্ত্রী বাসভবনে যান। নীতীশ কুমারের সঙ্গে প্রায় আধঘণ্টা কথা বলার পর বৃহস্পতিবারই ডা. মেওয়ালাল তাঁর পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে দিলেন। মেওয়ালাল চৌধুরীর বিরুদ্ধে ভাগলপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর থাকাকালীন অনিয়মের অভিযোগে মামলা রুজু করা হয়। প্রতিষ্ঠানে বেআইনিভাবে জুনিয়র বৈজ্ঞানিক নিয়োগের অভিযোগ ছিল তাঁর বিরুদ্ধে। ভাগলপুর এডিজি-১-এ বিচারাধীন ছিলেন। এতদিন তিনি চার্জশিটের অপেক্ষায় ছিলেন।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only