শনিবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২০

ভিনধর্মে বিয়ে রুখতে অর্ডিন্যান্স নাৎসি জার্মানিতে মনে করাচ্ছেঃ বৃন্দা কারাত



পুবের কলম প্রতিবেদকঃ উত্তরপ্রদেশের বিজেপি সরকার ভিনধর্মে বিয়ে রুখতে যে অর্ডিন্যান্স এনেছে তা নাৎসি জার্মানিকে মনে করাচ্ছে বলে মন্তব্য করলেন সিপিআইএম-এর পলিড ব্যুরো সদস্য বৃন্দা কারাত। এ বিষয়ে একটি নিউজ চ্যানেলের ওয়েবসাইটে তাঁর একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। সেখানে তিনি বলছেন, ১৯৩৪ সালে নাৎসি জার্নানি একাধিক আইন করে আর্য ও ইহুদিদের মধ্যে বিয়ে এবং শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন নিষিদ্ধ করে। এই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করলে প্রথমে তার জেল এবং পরে কনসেনস্টেরশন ক্যাম্পে পাঠানো হত।

বিহার ভোটের প্রচারের শেষ বেলায় কথিত ‘লাভ জিহাদ’কে বিভাজনের অস্ত্র হিসেবে তুলে ধরতে শুরু করেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। সেই সময়ই উত্তরপ্রদেশের উপনির্বাচনের প্রচারে গিয়ে বলেছিলেন, ‘লাভ জিহাদ’ প্রমাণ হলে ‘রামনাম সত্য’ করে দেব। মুখ্যমন্ত্রীর মুখে এইভাবে হত্যার হুমকির কথা স্মরণ করিয়ে বৃন্দা কারাত বলেন, এই অর্ডিন্যান্স এনে সেই কাজ শুরু করে দেওয়া হল। যে বিষাক্ত ‘লাভ জিহাদ’-এর প্রচার চলছে, তা ভারতীয় সংবিধানেরই ‘রামনাম সত্য’ করে দেবে। ওই সিপিএম নেত্রীর মতে, উত্তরপ্রদেশের বিজেপি সরকার যে অর্ডিন্যান্স এনেছে তা ভিনধর্মে বিয়ে রোখার উদ্দেশ্যেই এবং এরজন্য নানা ধরনের ধারার এনেছে। এটা প্রেম ভালোবাসাকে অপরাধীকরণ করার আইনি ব্যবস্থা ছাড়া আর কিছু নয়।

বৃন্দা কারাত মনে করেন, যোগী সরকারের এই অর্ডিন্যান্স ভালোবাসার বিরুদ্ধে। এতে ধর্মবিচার না করে কেবল ভালোবেসে যারা বিয়ে করেছে বা করবে তারা ভয়ংকর সমস্যায় পড়বে। তাই এই অধ্যাদেশ হিটলারের আইন থেকে কিছু কম নয়।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only