সোমবার, ২৩ নভেম্বর, ২০২০

সফরসূচি বদলের পর বাঁকুড়ায় মুখ্যমন্ত্রী, প্রশাসনিক সভা ও জনসভা করবেন মমতা



কার্তিক ঘোষ, বাঁকুড়া:­ সোমবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাঁকুড়া জেলা সফরে আসার কথা ছিল। পূর্বঘোষিত সফরসূচি বাতিল করে রবিবার বিকেল ৩টে  ২৫ মিনিটে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হেলিকপ্টারে বাঁকুড়ার মুকুটমণিপুরে নামেন। তাঁর সঙ্গে বাঁকুড়ায় এসেছেন সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হেলিকপ্টার থেকে অবতরণ করার পর একদল মহিলা হেলিপ্যাডের সামনে দাঁড়িয়ে ‘দিদি’, ‘দিদি’ বলে চিৎকার করতে থাকেন। তাঁদের হাতে ছিল আবেদনপত্র। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁদের দিকে এগিয়ে আসেন। এরপর ওই মহিলারা মুখ্যমন্ত্রীর কাছে লিখিত আবেদনপত্র জমা দেওয়া হয়েছে। 

জানা গিয়েছে, মুকুটমণিপুরে হেলিপ্যাড সংলগ্ন কংসাবতী কলোনির পরিত্যক্ত কোয়ার্টারে ৫০টি অসহায় উদ্বাস্তু পরিবার দীর্ঘ ৪০-৫০ বছর ধরে বসবাস করছেন। অভিযোগ, দীর্ঘদিন আগে কংসাবতী কর্তৃপক্ষ ওই কোয়ার্টারগুলির বাসিন্দাদের বিদ্যুৎ ও জল সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে। এর ফলে খুবই অসুবিধার মধ্যে বসবাস করছেন তাঁরা। 

ওই কোয়ার্টারের বাসিন্দা প্রতিবন্ধী মহিলা কাকলি দত্ত গত ৪৫ বছর ধরে ওই কোয়ার্টারে আছেন। কাকলিদেবী জানালেন, শ্বশুরমশাই কংসাবতী প্রকল্পে চাকরি করতেন। শ্বশুরের মৃত্যুর পর কোয়ার্টার ছাড়তে পারেননি। আলো ও জল ছাড়া বসবাস করতে ভীষণই অসুবিধা হচ্ছে। একই অভিযোগ ওই কোয়ার্টারে প্রায় ৪০ বছর ধরে বসবাসকারী নন্দী দুলের। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে তাঁদের অনুরোধ, তাঁদের বসবাসের জন্য যেন কোনও স্থায়ী ব্যবস্থা করা হয়। 

এ দিন গোড়াবাড়ি গ্রামের শান্তিবালা সাহু নামে এক প্রতিবন্ধী দম্পতিও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে সাহায্যের আবেদন নিয়ে দেখা করতে আসেন। স্বামী অন্ধ, নিজের একটি পা খোঁড়া। ভিড় ঠেলে তিনি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ধারেকাছে পৌঁছতেই পারলেন না। চোখের জল ফেলতে ফেলতে বাড়ি ফিরে গেলেন। 

সূত্রের খবর, ৫ মিনিটের মতো হেলিপ্যাডের সামনে থাকার পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কংসাবতী সেচ বাংলোতে চলে যান। 

এ দিকে বাঁকুড়া জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, ২৩ নভেম্বর খাতড়া গুরুসদয় মঞ্চে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশাসনিক সভা হবে না। বেলা একটা নাগাদ সিধু-কানহু স্টেডিয়ামে মুখ্যমন্ত্রীর প্রশাসনিক সভা অনুষ্ঠিত হবে। 

জানা গিয়েছে, এই প্রশাসনিক বৈঠক থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বেশ কয়েকটি প্রকল্পের উদ্বোধন ও শিলান্যাস করার কথা। অনুষ্ঠান শেষে বাঁকুড়ার সার্কিট হাউসে ফিরে আসবেন তিনি।

প্রসঙ্গত, বাঁকুড়া জেলা প্রশাসন সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে কোভিড ভ্যাকসিন নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভার্চুয়াল বৈঠক রয়েছে। এরপর বিকেলে বাঁকুড়া রবীন্দ্র ভবনে প্রশাসনিক বৈঠক করবেন তিনি। সূত্রের খবর, বুধবার বাঁকুড়া - ১ নম্বর ব্লকের সুনুকপাহাড়ি হাটের মাঠে দলীয় জনসভায় বক্তব্য রাখবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

জানা গিয়েছে, এ দিন বেলা দেড়টা নাগাদ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে কোভিড টেস্ট করানোর পর সাংবাদিকদের সিকিউরিটি পাস দেওয়া হবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only