শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২০

পছন্দের সঙ্গীর সঙ্গে ঘর করতে পারবেন প্রাপ্তবয়স্করা



পুবের কলম প্রতিবেদকঃ ‘কারও ব্যক্তিগত সম্পর্কে বাধা দেওয়া যায় না। তাহলে ব্যক্তি-স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা হয়। দু’জন মানুষের পরস্পরকে বেছে নেওয়ার স্বাধীনতা আছে।’ সম্প্রতি এক মামলায় এমনই রায় দিয়েছিল ইলাহাবাদ হাইকোর্ট। এবার সেই একই কথা বলল দিল্লি হাইকোর্ট। কিছুদিন আগে সুলেখা নামে এক তরুণী ভালোবেসে বাবলু নামে এক যুবককে বিবাহ করে। মেয়েটির বাড়ির তাতে ঘোর আপত্তি ছিল। তাঁর বাবা-মায়ের বক্তব্য ছিল, সুলেখা নাবালিকা। বাবলু তাকে অপহরণ করেছেন।

দিল্লি হাইকোর্টের বিচারপতি বিপিন সাংঘি এবং রজনীশ ভাটনগর ভিডিয়ো কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে মেয়েটির সঙ্গে কথা বলেন। সে জানায়, তার বয়স ২০। অর্থাৎ সে নাবালিকা নয়। তখন বিচারপতিরা নির্দেশ দেন, পুলিশ যেন পাহারা দিয়ে সুলেখাকে তার স্বামীর কাছে পৌঁছে দিয়ে আসে। তারপরই বিচারপতিরা বলেন, কোনও প্রাপ্তবয়স্ক মহিলা যেখানে খুশি, যার সঙ্গে খুশি থাকতে পারেন। বর্তমানে লাভ জিহাদ নিয়ে বিতর্ক চলছেদেশজুড়ে। বিজেপিশাসিত কয়েকটি রাজ্য লাভ জিহাদের বিরুদ্ধে আইন করতে চলেছে। এই পরিস্থিতিতে দিল্লি হাইকোর্টের রায় বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলে পর্যবেক্ষক মহলের ধারণা।

দিল্লি হাইকোর্টের বিচারপতিরা নির্দিষ্ট করে বলে দিয়েছেন, পুলিশ সুলেখার বাবা-মাকে বোঝাবে, তাঁরা যেন মেয়ে-জামাইকে হুমকি না দেন। আইন যেন নিজেদের হাতে তুলে না নেন। কিছুদিন আগে ইলাহাবাদ হাইকোর্ট একটি এই ধরনের রায় দিয়েছিল। গতবছর আগস্টে উত্তরপ্রদেশে সালামত আনসারি নামে এক মুসলিম যুবক প্রিয়াঙ্কা খারওয়ার নামে এক হিন্দু তরুণীকে বিবাহ করেন। প্রিয়াঙ্কার বাবা-মা সালামতের বিরুদ্ধে মামলা করেছিলেন। ইলাহাবাদ হাইকোর্ট ওই মামলা বাতিল করে দিয়েছে। হাইকোর্টের দুই সদস্যের বেঞ্চ বলেছে, ‘কারও ব্যক্তিগত সম্পর্কে বাধা দেওয়া যায় না। তাহলে ব্যক্তি-স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা হয়। দু’জন মানুষের পরস্পরকে বেছে নেওয়ার স্বাধীনতা আছে।’ 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only