রবিবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২০

একসঙ্গে চলবে ‘দুয়ারে দুয়ারে সরকার’ ও ‘কেএমসি অ্যাট ডোর-স্টেপ’



পুবের কলম প্রতিবেদক:­ জনসাধারনের কল্যাণের জন্য রাজ্য সরকারের নানান প্রকল্প রয়েছে। কিন্তু মানুষ সেইসব প্রকল্পের সুবিধা কি ঠিকঠাক পাচ্ছেন? যদি অভিযোগ থাকে তবে কিভাবেই বা নিরসন হবে? এই জন্যেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চালু করেছেন ‘দুয়ারে দুয়ারে সরকার’ নামে একটি কর্মসূচি গ্রহণ করেছেন। মানুষকে সরকারি সুবিধা সহজে  পাইয়ে  দিতে কাজ করবেন সরকারি আধিকারিকরা।  সেই প্রক্রিয়া আগামী ১ ১ ডিসেম্বর থেকে শুরু হবে, চলবে ২৮ জানুয়ারি পর্যন্ত। বসে নেই কলকাতা পুরনিগমও। তারাও অংশ নেবে সরকারি ওই কর্মসূচিতে। শুধু তাই নয়, ঘরের দরজায় কলকাতা পুরনিগম বা ‘কেএমসি অ্যাট ডোর-স্টেপ’ কর্মসূচির সমস্ত কাজ করবেন। এরজন্য সব ওয়ার্ডেই দশজন করে আধিকারিক থাকবেন। শনিবার এমনটাই জানিয়েছেন রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী তথা কলকাতার পুর-প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম।

সরকারি সূত্রে খবর, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘোষণা অনুসারে রাজ্যের জনগণকে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড দেওয়ার পাশাপাশি খাদ্যসাথী, কন্যাশ্রী, রুপশ্রী, ঐক্যশ্রী’র মতো প্রায় ১০টি বড় সরকারি জনকল্যাণমূলক কর্মসূচি বিষয়ক সহায়তা দেওয়া হবে। এই কর্মসূচি চলাকালীন মানুষ সরকারি প্রকল্পের আবেদন ও অভিযোগ জানানোর সুযোগ পাবেন।  বিজ্ঞপ্তি অনুসারে জনগণ তাদের যেকোন প্রকল্পের জন্য আবেদনগুলি নিবন্ধভুক্ত করার এবং তাদের অভিযোগ জানানোর সুযোগ পাবেন।

এদিকে সরকারি কাজে লাল ফিতের গেরো কাটাতে পুর-আধিকারিকদের নিয়ে কমিটি গড়েছেন ফিরহাদ হাকিম। বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের জটিলতা কাটাতে ও সবকিছু সরলীকরণের জন্যেই তা করা হয়েছে বলে খবর। আর্থিক দেনদেনের বিষয়গুলি যাতে অনলাইনে হয়, সেই দিকেই নজর দেওয়ার কথা বলেন পুর-প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only