বৃহস্পতিবার, ৫ নভেম্বর, ২০২০

খাবার নেই ইথিওপিয়ায় ! পঙ্গপালের হানায় ধ্বংস ২ লক্ষ হেক্টর জমির ফসল



আদ্দিস আবাবা,৫ নভেম্বরঃ­ কঠিন চাষের মরসুম শেষ হয়েছে ইথিওপিয়ায়। এই মরসুমটা কৃষকদের জন্য খুব লাভদায়ক ছিল না। মনে মনে এ নিয়ে বিড় বিড় করে কিসব যেন বলছিলেন ইথিওপিয়ার কৃষক লেইলা মুহাম্মদ। হঠাৎ তাঁর মাথায় আসে চলতি মরসুমে মিলেট চাষ করলে মন্দ হয় না। মিলেটের চাহিদা রয়েছে বাজারে তাই লাভের মুখ দেখতে পারেন তিনি। লাভ-লোকসানের যাবতীয় হিসাব কষতে কষতেই আকাশ পানে চোখ যায় তাঁর। এ কি দেখলেন তিনি! এ তো ক্ষুদে দানব পঙ্গপাল! একটু একটু করে চাষের জমির দিকে এগিয়ে আসছে বিধ্বংসী উড়ন্ত পোকার দল। সব কিছু গুলিয়ে গিয়ে মাথায় হাত পড়ল মুহাম্মদের। এবার কি হবে? একটি লাঠিতে কাপড় জড়িয়ে পঙ্গপাল তাড়াতে মরিয়া হয়ে উঠলেন। কিন্তু সর্বনাশ এড়ানো যায়নি। তাঁর চাষের জমিতে যে ফসল ছিল তার সবটাই ততক্ষনে ধ্বংস হয়ে গিয়েছে। ইথিওপিয়ার সোমালি প্রদেশে নিজের ছয় সন্তানকে নিয়ে বসবাস করেন মুহাম্মদ। এদিন পঙ্গপালের কাছে সব কিছু খুইয়ে ভবিষ্যৎটা অন্ধকার মনে হতে থাকল তাঁর। বলেন ‘ওরা আমার ফসল শেষ করে দিয়েছে। কি করব জানি না। পঙ্গপালের বিরুদ্ধে লড়াই করতে গিয়ে আমাদের সব খাবার শেষ হয়েছে।’ সেদিনকার ঘটনাটি যেন বিভীষিকা হয়ে গেঁথে গিয়েছে তার মনে। স্মরণ করে বলেন মনে হচ্ছিল আকাশে যেন একটি বিরাট ঘূণিঝড় হচ্ছে। এরপরই তারা ছত্রভঙ্গ হয়ে ফসলে আক্রমণ করে। ইথিওপিয়ার চলতি কৃষি মরসুমে বিগত এক সপ্তাহের মধ্যে দ্বিতীয়বার পঙ্গপালের দল ফসলের জমিতে হামলা করেছে। আওবারে জেলার ফাফেন এলাকার এক স্থানীয় আধিকারিক সিবা এদেন মুহাম্মদ বলেন ‘বিগত সপ্তাহেই এই এলাকাটিতে পঙ্গপাল নিধনে রাসায়নিক স্প্রে করা হয়েছে ।’ তবে লাভ হয়নি। রাসায়নিক বিক্রিয়া শেষ হতেই সদলবলে আরও শক্তিশালী হয়ে ফিরে এসেছে পঙ্গপালরা। জমির ফসলের শেষ দানাটুকুও সাবাড় করে দিয়েছে তারা।  খাদ্য ও কৃষি সংস্থার তরফে জানানো হয় জানুয়ারির পর থেকে এখনও পর্যন্ত পঙ্গপালের দল ইথিওপিয়ার অন্তত ২ লক্ষ হেক্টর জমির ফসল ধ্বংস করে দিয়েছে। এর ফলে সেদেশে খাদ্য সংকট তীব্র হয়েছে। খাদ্য নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন লক্ষ লক্ষ মানুষ। 


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only