মঙ্গলবার, ১৭ নভেম্বর, ২০২০

বাংলাকে ‘গুজরাত’ বানানোর হুংকার দিলীপের, 'গুজরাত বানাতে দেব না' পালটা চ্যালেঞ্জ ফিরহাদের



পুবের কলম প্রতিবেদকঃ দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের উলটো সুর দিলীপ ঘোষের গলায়। দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  যেখানে একুশের বিধানসভা ভোটে রাজনৈতিক পালাবদল ঘটলেই (যার সম্ভাবনা এখনও ক্ষীণ) বাংলাকে ‘সোনার বাংলা’ হিসেবে গড়ে তোলার টোপ দিয়েছেন, সেখানে বাংলাকে ‘গুজরাত’ বানানোর হুংকার ছুড়েছেন বঙ্গ বিজেপি সভাপতি। সোমবার বারাসতে ‘চায়ে পে চর্চায়’ যোগ দিয়ে রাখঢাক না রেখে দিলীপ ঘোষ গর্বিত কণ্ঠে বলেছেন, ‘একবার নয়, একশোবার বলছি, বাংলাকে আমরা গুজরাত বানাতে চাই।’ তবে গোধরার মতো বাংলাতেও কলঙ্কিত ও ইতিহাসের ভয়াবহতম মুসলিম নিধনযজ্ঞ ঘটবে কিনা, তা অবশ্য খোলসা করেননি তিনি। 

যদিও দিলীপের হুংকারকে পাত্তাই দিতে চাননি রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। বরং পালটা চ্যালেঞ্জ ছুড়ে তিনি বলেছেন ‘বাংলাকে কিছুতেই গুজরাত বানাতে দেব না। দিলীপ ঘোষের গুজরাত বানানোর স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে যাবে। তাই উনি যখন এতই গুজরাতপ্রেমী, তা গুজরাতে গিয়েই থাকুন। গুজরাত মানেই গোধরা, গুজরাত মানেই ইশরাত জাহান। গুজরাত মানেই ভুয়ো এনকাউন্টার। বাংলার শান্তিপ্রিয় মানুষ দিলীপ ঘোষদের ঔদ্ধত্যের যোগ্য জবাব দেবে।’

সম্প্রতি একুশের বিধানসভা ভোটের ঘুঁটি সাজাতে রাজ্যে এসে ‘সোনারবাংলা’ গড়ার ডাক দিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এমনকী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কণ্ঠেও একাধিকবার ‘সোনারবাংলা’ গড়ার কথা শোনা গিয়েছে। কাকতালীয় দু’জনেই গুজরাতের ভূমিপুত্র। এমনকী গোধরার মতো দেশের ইতিহাসের সবচেয়ে কলঙ্কময় অধ্যায়ের সময়েই দু’জনের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ। দুই গুজরাতি নেতা যেখানে বাংলাকে সোনার বাংলা হিসেবে গড়ার কথা বলছেন, সেখানে উলটো কথা বলে চলেছেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি। এ দিন বারাসতে এক দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দিয়ে তিনি বলেন ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বারবার বলে চলেছেন, বিজেপি বাংলাকে গুজরাত বানাতে চায়। আমি বলছি, হ্যাঁ আমরা বাংলাকে গুজরাতই বানাতে চাই। একশোবার আমরা বাংলাকে গুজরাত তৈরি করব। রাজ্যের মানুষকে যাতে চাকরির জন্য ভিনরাজ্যে না যেতে হয় সেই জন্য বাংলাকে গুজরাত বানাবে বিজেপি।’

তৃণমূল জমানায় বাংলায় কোনও উন্নয়ন হচ্ছে না দাবি করে বিজেপি রাজ্য সভাপতি বলেন ‘রাজ্যে কীসের উন্নয়ন হচ্ছে? আগে অনেক আইএএস,আইপিএস,ডাক্তার,ইঞ্জিনিয়র হত। আর এখন বাইরে থেকে তাঁদের এ রাজ্যে আনতে হচ্ছে। বাংলা থেকে এখন শুধুই পরিযায়ী শ্রমিক তৈরি হয়। তাঁরা গুজরাতে কাজ করতে যান। সিঙ্গুর থেকে টাটারা গুজরাতে চলে গিয়েছে। আর যাতে কেউ না যায়, তার জন্য বাংলাকে গুজরাত বানাব।’

বিজেপি রাজ্য সভাপতিকে মন্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে পালটা চ্যালেঞ্জ ছুড়ে রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেছেন ‘পশ্চিমবঙ্গকে আমরা গুজরাত বানাতে চাই না। কাউকে বানাতেও দেব না। কারণ গুজরাত হওয়া মানে এনকাউন্টারে খুন। গুজরাত মানে দাঙ্গায় ২০০০ মানুষের মৃতু্য। গুজরাতের শিল্প মানে আম্বানি-আদানি। দিলীপ ঘোষ জানেন না গুজরাতের সানন্দে ন্যানো কারখানাও বন্ধ হয়ে গিয়েছে। সেখানে বাংলায় নতুন-নতুন ছোট ও মাঝারি শিল্প গড়ে উঠছে। বিজেপি রাজ্য সভাপতি চাইলে গুজরাতে গিয়ে থাকুন। বাংলায় আমরা সবাই মিলেমিশে শান্তিতে থাকব। দেশে বিজেপি এমন সরকার চালাচ্ছে যে জিডিপি বাংলাদেশের থেকে কমে গেছে। বিজেপি চলে গেলে শুধু এই দেশে নয়  গোটা পৃথিবীতে শান্তি আসবে।’


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only