রবিবার, ২২ নভেম্বর, ২০২০

অবৈধ নির্মাণে পর পর দু’দিনে সাজা ঘোষণা পুর আদালতের



পুবের কলম প্রতিবেদক­: বহুতল নির্মাণের কোনও নির্দেশই ছিল না। তা সত্ত্বেও তিন তলার বাড়ি বানিয়ে ফেলেছিলেন মালিক এবং প্রমোটার। একেই তো অবৈধ নির্মাণ তার ওপর বাড়ির চারপাশে এক ইঞ্চি জায়গাও ছাড়া হয়নি। বিষয়টি পুরসভার নজরে আসতেই তৎক্ষণাৎ কাজ বন্ধের নোটিশ দেয় পুরসভা। কিন্তু পুর নির্দেশকে বুড়ো আঙুল দেখিয়েই কাজ চালিয়ে যান মালিক ও প্রমোটার। এভাবে অবৈধ নির্মাণ এবং পুরসভার নির্দেশ অমান্য করার দায়ে মালিক ও প্রমোটার দু’জনকেই সাজা দিল কলকাতার পুর আদালত। শনিবার কলকাতা পুর আদালতের মুখ্য বিচারক প্রদীপ কুমার অধিকারি এই সাজা ঘোষণা করেন। 

আদালত সূত্রে জানা গিয়েছে যে নারকেলডাঙা নর্থ রোডে ২০১৬ সালে এই অবৈধ নির্মাণ চলছিল। পুরসভার নির্দেশমতো কাজ বন্ধ না করায় পুর ইঞ্জিনিয়াররা স্থানীয় থানায় মালিক এবং প্রমোটারের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। এরপরেই মামলাটি ওঠে কলকাতা পুর আদালতে। প্রমোটার মুহাম্মদ মোমিনকে ৪ বছরের সাজা দেওয়া হলেও মালিক সুবীর পালের এক সন্তান বিশেষভাবে চাহিদাসম্পন্ন হওয়ায় সাজা কম করার বিচারকের কাছে আর্জি জানান। তার আর্জিতে সাড়া দিয়ে মানবিক হয়ে বিচারক তাকে ৩ বছরের সাজা দিয়েছেন। সেইসঙ্গজ, দু’জনকেই জরিমানা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। একইসঙ্গে, ভেঙে ফেলতে বলা হয়েছে পুরো বাড়িটি। শুধু তাই নয়, মামলার সমস্ত নথি খতিয়ে দেখে পুরসভার ডিজি বিল্ডি ২-এর গাফিলতিও খুঁজে পেয়েছে আদালত। তার ভিত্তিতে তাঁর বিরুদ্ধে পুর কর্তৃপক্ষকে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। 

অন্যদিকে, গত শুক্রবার আরও একটি অবৈধ নির্মাণের মামলায় রায় ঘোষণা করেছেন পুর আদালতের মুখ্য বিচারক প্রদীপ কুমার অধিাকারী। পোস্তা থানা এলাকায় অবৈধভাবে বহুতল নির্মাণের দায়ে বাড়ির মালিক ও প্রমোটার দীনেশ শর্মাকে ৩ বছরের কারদণ্ড দিয়েছে আদালত। এক্ষেত্রেও বাড়িটি ভেঙে ফেলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only