রবিবার, ১ নভেম্বর, ২০২০

‘ডু অর ডাই’ ম্যাচে রাজস্থানের বিরুদ্ধে নাইট



পুবের কলম প্রতিবেদকঃ­ নাইট সংসারে এখন চলছে দারুণ অশান্তি। কেউ কাউকে মানেন না। দল গঠন নিয়েও চূড়ান্ত অপেশাদারিত্ব। গোড়ায় গলদ থাকলে যা হয় আর কি? ইংল্যান্ডের বিশ্বজয়ী অধিনায়ক ইয়ন মর্গান এতদিন খেললেন এমন একজন ক্যাপ্টেনের অধীনে যাঁর কোনও নম্বরই নেই। যাও বা মর্গানকে ক্যাপ্টেন করা হল তাঁর আবার নিজের কথার কোনও মূল্যই দিতে চান না নাইট টিম ম্যানেজমেন্ট। দল ঠিক করেন নাইট কর্তারা। ক্যাপ্টেনের কথা শোনেন ঠিকই। কিন্তু মান্যতা দেন বলে তো মনে হয় না। আর তা নিয়ে রীতিমতো ক্ষোভ বাড়ছে খোদ নাইটদের অন্দরমহলেই। প্লে-অফে যাওয়ার রাস্তা এখনও রয়েছে কেকেআরের কাছে। কিন্তু তার জন্য আবার বহু সমীকরণ রয়েছে। রাজস্থানের বিরুদ্ধে নাইটদের জিততে তো হবেই সঙ্গে আবার পঞ্জাবকে পরের ম্যাচে হেরে যেতে হবে। যেন মামার বাড়ির আবদার। তাই তাই করে মামার বাড়ি মানে প্লে-অফে যদি পৌঁছেও যায় নাইট তাহলেও কি শেষপর্যন্ত ফাইনালে উঠতে পারবে? কারণ চতুর্থ হয়ে উঠলে প্লে-অফে একটা ম্যাচে হারলেই বাপি বাড়ি যা। তাই নাইটরা এখন আপ্রাণ চেষ্টা করছেন যেনতেনপ্রকারেণ দুই অথবা তিন নম্বর জায়গাটা দখল করার। 


আর সেই উদ্দেশ্যেই এবার দুবাইয়ে রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধে নামতে চলেছে নাইট রাইডার্স। জিতলে ঠিক আছে– হারলে সব শেষ। রাজস্থানের বিরুদ্ধে শুভমান গিল ও নীতীশ রানাকে পাচ্ছে নাইটরা। মর্গ্যান রাহুল ত্রিপাঠি, সুনীল নারিনও রয়েছেন। কিন্তু সেই চিরাচরিত সমস্যা। ব্যাটিং অর্ডার কি হতে পারে? ম্যাচের আগে স্বয়ং ঈশ্বরও জানেন না কেকেআরের ব্যাটিং অর্ডারে ইয়ন মর্গান কোথায় নামবেন? ওপেনার ঠিক থাকলেও রাজস্থানের বিরুদ্ধে মিডল অর্ডারের কোনও অর্ডার জানেন না খোদ ক্যাপ্টেন। শুধু এটুকু বলছেন ‘দেখা যাক কি হয়।’ অন্যদিকে রাজস্থান রয়্যালস আগের ম্যাচেই পঞ্জাবের বড় রান তাড়া করে রীতিমতো জিতে গিয়েছে। কেকেআর একটাই সুবিধে পেতে চলেছে রাজস্থান ম্যাচটার আগে দু’টো দিন বিশ্রাম পেয়েছে। আর স্মিথরা এতটুকুও বিশ্রাম না নিয়ে নাইটদের বিরুদ্ধে নামতে চলেছেন দুবাইয়ে। বেন স্টোকসহীন রাজস্থান রয়্যালস প্রথম পর্বে কেকেআরের কাছে ৩৭ রানে হেরেছিল এটাই যা মানসিক অ্যাডভান্টেজ নাইটদের কাছে। কিন্তু এবার রাজস্থানে স্টোকস চলে এসেছেন। আর তিনি ধারাবাহিকতার মধ্যেই রয়েছেন। তাই কামিন্স,প্রসিদ্ধ কৃষ্ণাদের কাছে ম্যাচটা একটা মাথাব্যথার কারণ। রাজস্থানে যাঁরা রয়েছেন তারা কিন্তু সকলেই ম্যাচের রং পালটে দিতে পারেন। স্টোকস,বাটলার,রাহুল তিওয়াটিয়া সঞ্জু স্যামসন,রিয়ান পরাগ প্রত্যেকেই হার্ড হিটার। সঙ্গে আবার টেল এন্ডার হিসেবে জোফ্রা আর্চার রয়েছেন। তাই কেকেআরের পক্ষে ম্যাচটা মোটেও সহজ ম্যাচ নয়। তার মধ্যে আবার জোফ্রার বোলিং এই মুহূর্তে অনবদ্য। মোট ১৯টি উইকেট তিনি নিয়ে ফেলেছেন চলতি আইপিএলে। টম কারেন বা বাকি বোলাররা অবশ্য ততটা ধারাবাহিক নন এটাই আশার কথা নাইটদের কাছে। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only