শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২০

বহিরাগতদের বাংলায় ঠাঁই নেই, সুর চড়ালেন মমতা



পুবের কলম প্রতিবেদকঃ­ একুশের বিধানসভা ভোটের বৈতরণি পার হতে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব যেভাবে ভিনরাজ্যের নেতাদের বঙ্গে পাঠাচ্ছে , তা নিয়ে এবার সুর চড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার নবান্নে সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি সরাসরিই অভিযোগ করেছেন, ‘ভোটের আগে বহিরাগতরা রাজ্যে ঢুকছে। কোনও কাজকর্ম নেই। তাই ভিনরাজ্য থেকে গুন্ডা আর দাঙ্গাবাজদের নিয়ে এসে বাংলায় দাঙ্গা বাঁধানোর চেষ্টা করছে।’ তবে বহিরাগতদের নিয়ে এসে বিজেপির বাংলা দখলের চেষ্টা যে সফল হতে দেবেন না সেই চ্যালেঞ্জও ছুড়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। স্পষ্ট হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ‘বাংলায় বহিরাগতদের কোনও জায়গা নেই। দাঙ্গা বাঁধানোর চেষ্টা বরদাস্ত করা হবে না।’

এ দিনই মাঝেরহাট ব্রিজ খুলে দেওয়ার দাবিতে বিজেপির কর্মসূচি ঘিরে ধুন্ধুমার বেঁধে যায়। দলের ভারপ্রাপ্ত পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়কে গ্রেফতার করা হয়েছে বলেও বঙ্গ বিজেপির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়। যদিও সেই দাবি নস্যাৎ করে মুখ্যমন্ত্রী তথা রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন,‘যাকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে দাবি করা হচ্ছে, তাকে পুলিশ গ্রেফতারই করেনি। ওই নেতাই গাড়িতে উঠে পড়ে পুলিশকে বলেছেন, আমাকে গ্রেফতার করুন। পুলিশ বলেছে, আপনাকে গ্রেফতার করিনি। বলছে ফোটো দিখানা পড়েগা। অ্যারেস্ট করেনি, বলছে ফটো দিখানা পড়েগা। প্রতিদিন এটা একটা প্ল্যান হয়ে গেছে। ফোটো দেখাতে হবে। কাজ নেই কম্মো নেই। কীভাবে ঝামেলা পাকানো যায়, সেই ফন্দি আঁটছে।’ বিজেপিকে ‘বস্তাপচা জঙ্গল পার্টি’ এবং ‘গারবেজ অফ লাইস’ বলেও কটাক্ষ করেন তিনি। 

মাঝেরহাট সেতু সময়মতো চালু না হওয়ার দায়ও এ দিন রেলের উপরে চাপিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘প্রথম থেকেই রাজ্য সরকারের সঙ্গে সহযোগিতা করেনি রেল। ৯ মাস কাজ শুরুর অনুমোদন দেয়নি। আমরা ৯ মাস ধরে কেন্দ্রের পায়ে ধরেছি। ইচ্ছে করেই দেরি করেছে রেল। কাজ সম্পূর্ণ হতে আরও কয়েকদিন লাগবে।’ এ দিন বিজেপির আন্দোলনকে নাটক বলে কটাক্ষ করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘আন্দোলনের নামে নাটক করছে বিজেপি। নোংরা রাজনীতি করছে। মানুষকে অকারণ হয়রান করছে। বেহালার মানুষ সব জানে।’

বিজেপি শাসনের নামে দেশকে বিক্রি করে দিচ্ছে বলে অভিযোগ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘রেল,বিমান,ব্যাঙ্ক সব বেচে দিচ্ছে। কেউ কখনও শোনেনি দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পুরসভা ভোটের প্রচারে মাটি গেড়ে পরে থাকছেন। সীমান্ত থেকে জঙ্গি,বিচ্ছিন্নতাবাদীরা ঢুকে পড়ছে। নাশকতামূলক কাজ করে নির্বিঘ্নে বেরিয়ে যাচ্ছে। সে দিকে কোনও নজরই নেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর।’

মোদি সরকারের কৃষি বিলের বিরুদ্ধে আন্দোলনরত কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। আন্দোলনকারীদের উদ্দেশে বার্তা দিয়েছেন, ‘আমাকে ডাকলে, আমিও দিল্লি যাব। আপনাদের পাশে দাঁড়াব। আন্দোলন করব।’


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only