সোমবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২০

‘একটি রাজ্য এখনও কৃষক সম্মান নিধি প্রকল্প চালু করেনি' নাম না করে রাজ্যকে খোঁচা নমোর

 



বারাণসী, ৩০ নভেম্বর: বারাণসীতে হাইওয়ে উদ্বোধন অনুষ্ঠানেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ভাষণে নাম না করে উঠে এল পশ্চিমবঙ্গের প্রসঙ্গ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘একটি রাজ্য এখনও কৃষক সম্মান নিধি প্রকল্প চালু করেনি মোদির নাম হবেতাই একটি রাজ্য কেন্দ্রীয় প্রকল্প চালু করেনি আমরা ক্ষমতায় এলে কৃষকদের কাছে টাকা পৌঁছে দেব নাম না করে এভাবে তিনি আসলে পশ্চিমবঙ্গের  তৃণমূল সরকারকে আক্রমণ শানিয়েছেন বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

এদিন বারাণসীতে তিনি  বলেন, যাঁরা বছরের পর বছরের কৃষকদের প্রতারণা করে এসেছেন, তাঁরাই নয়া কৃষি  আইন নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছেন অথচ নতুন আইনে কৃষকদের নয়া বিকল্প আইনি সুরক্ষা দেওয়া হয়েছেএদিন প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, বারাণসীর কৃষকদের জন্য কার্গো সেন্টার তৈরি হয়েছে। নতুন আইনে বাধা কোথায়? কৃষি আইন নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। আগে ছোট কৃষকরা সব সময় প্রতারণার শিকার হতেন। এখন ছোট কৃষকরাও আইনের সুবিধা পাবেন।

পাশাপাশি তাঁর আরও সংযোজন, উত্তরপ্রদেশের আগে অবস্থা কী ছিল, সবাই জানে। এখন এই রাজ্য থেকে সব্জি লন্ডন, দুবাই যাচ্ছে। ভোটের সময় প্রতিশ্রুতি। পরে প্রতারিত হন কৃষকরা। আমরা বলেছিলাম, ইউরিয়ার কালোবাজারি বন্ধ করব। এখন ইউরিয়া নিয়ে আর সঙ্কট তৈরি হয় না। নতুন বারাণসীর কৃষকদের জন্য কার্গো সেন্টার তৈরি হয়েছে। নতুন আইনে বাধা কোথায়? কৃষি আইন নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। আগে ছোট কৃষকরা সব সময় প্রতারণার শিকার হতেন। এখন ছোট কৃষকরাও আইনের সুবিধা পাবেন। উত্তরপ্রদেশের আগে অবস্থা কী ছিল, সবাই জানে। এখন এই রাজ্য থেকে সব্জি লন্ডন, দুবাই যাচ্ছে। ভোটের সময় প্রতিশ্রুতি। পরে প্রতারিত হন কৃষকরা। আমরা বলেছিলাম, ইউরিয়ার কালোবাজারি বন্ধ করব। এখন ইউরিয়া নিয়ে আর সঙ্কট তৈরি হয় না। নতুন ষি আইন নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। আগে ছোট কৃষকরা সব সময় প্রতারণার শিকার হতেন। এখন ছোট কৃষকরাও আইনের সুবিধা পাবেন। উত্তরপ্রদেশের আগে অবস্থা কী ছিল, সবাই জানে। এখন এই রাজ্য থেকে সব্জি লন্ডন, দুবাই যাচ্ছে। ভোটের সময় প্রতিশ্রুতি। পরে প্রতারিত হন কূষকরা। আমরা বলেছিলাম, ইউরিয়ার কালোবাজারি বন্ধ করব। এখন ইউরিয়া নিয়ে আর সঙ্কট তৈরি হয় না।

মোদির এই অভিযোগের জবাব দিয়েছেন তূণমূল সাংসদ সৌগত রায়। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী যে প্রকল্পর কথা বলছেন একই ধরণের প্রকল্প বাংলাতে চালু রয়েছে। এই প্রকল্প কেন্দ্রীয় প্রকল্পের অনেক আগেই শুরু হয়েছে। যার দ্বারা বাংলার কৃষকরা বছরে ৫ হাজার টাকা করে আর্থিক সাহায্য পান। যাদের জমি আছে তারাই নন, সুবিধা পান ভূমিহীন ভাগচাষীরাও। তাহলে প্রধানমন্ত্রী কীভাবে বলতে পারেন কৃষকরা সাহায্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন?

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only