রবিবার, ১ নভেম্বর, ২০২০

‘লাভ জিহাদ’ বন্ধ না হলে ‘রাম নাম সত্য হ্যায়’ যাত্রা শুরু হবে : আদিত্যনাথ



পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক : উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ও বিজেপি’র ফায়ারব্রান্ড নেতা  যোগী আদিত্যনাথ শনিবার একটি নির্বাচন সভায় বলেছেন,   তাঁর সরকার 'লাভ জিহাদ' বন্ধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, যদি কেউ ছদ্মবেশে বোন-কন্যাদের নিয়ে খেলা করে, যদি তারা সংশোধন না হয়, তবে এবার 'রাম নাম সত্য হ্যায়' যাত্রা বেরোতে চলেছে। পূর্ব উত্তর প্রদেশের জৌনপুরে উপ-নির্বাচন উপলক্ষে অনুষ্ঠিত সমাবেশে যোগী আদিত্যনাথ আজ ওই মন্তব্য করেন।

যোগী আদিত্যনাথ বলেন, ‘এলাহাবাদ হাইকোর্ট আদেশ দিয়েছেন যে, বিয়েতে ধর্মান্তরিত হওয়া জরুরি নয়। ধর্ম পরিবর্তন করা উচিত নয়, এর স্বীকৃতি দেওয়া উচিত নয়। সেজন্য সরকার সিদ্ধান্ত নিচ্ছে যে, আমরা 'লাভ জিহাদ' বন্ধে কঠোরভাবে কাজ করব। এ সম্পর্কে একটি কার্যকর আইন তৈরি করা হবে।’

আদিত্যনাথ বলেন, ‘যারা ছদ্মবেশে, লুকিয়ে, নাম গোপন করে, পরিচিতি গোপন করে বোন-কন্যাদের সম্মান নিয়ে খেলা করে, তাদের উদ্দেশ্যে আগেভাগে আমার হুঁশিয়ারি, সংশোধন না হলে এবার 'রাম নাম সত্য হ্যায়' যাত্রা বেরোতে চলেছে।’ 

উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এভাবে নির্বাচনী সমাবেশে কথিত ‘লাভ জিহাদ’-এর বিরুদ্ধে হিন্দুদের শবযাত্রার সময়ে ব্যবহৃত ধ্বনি ব্যবহার করেলেন। ভারতে বিহার, উত্তর প্রদেশ, মধ্য প্রদেশের মত বিভিন্ন রাজ্যে হিন্দুদের শব যাত্রার সময়ে 'রাম নাম সত্য হ্যায়'  ধ্বনি দেওয়া হয়।

মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ আরও বলেন, ‘আমরা ‘অপারেশন শক্তি’  চালাচ্ছি। ‘অপারেশন শক্তি’র উদ্দেশ্য হ'ল যেকোনো পরিস্থিতিতে আমাদের বোন ও কন্যাকে রক্ষা করা। আমরা তাদের সম্মান রক্ষা করব। এরফলে আদালতের আদেশ পালনও হবে এবং বোন-কন্যারাও মর্যাদা পাবে।’

উত্তর প্রদেশে গত কয়েক মাসে নারীদের বিরুদ্ধে গুরুতর অপরাধের জন্য তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছে যোগী আদিত্যনাথ সরকার। এরআগে কয়েকজন বিজেপি নেতাও ওই ইস্যুতে গ্রেফতার হয়েছেন। 



অন্যদিকে, মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী দিগ্বিজয় সিং সম্প্রতি ‘লাভ জিহাদ’ ইস্যুতে বলেছেন,  কোনও মুসলিম যুবক যদি কোনও হিন্দু মেয়েকে বিয়ে করেন, তবে একে ‘লাভ জিহাদ’ বলা হচ্ছে। তার প্রশ্ন- প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মন্ত্রিসভায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মুখতার আব্বাস নাকভির স্ত্রী ও বিজেপি নেতা শাহনওয়াজ হুসেনের স্ত্রীও হিন্দু। এটাও কী তাহলে ‘লাভ জিহাদ’?

দিগ্বিজয় সিং আরও বলেন,  বিজেপির হাতে কোনও ইস্যু নেই। সেজন্য ওঁদের নেতারা বারবার হিন্দু-মুসলিম বিষয়ে উসকে দিচ্ছেন। ধর্মের নামে মানুষকে উসকানি দেওয়াই তাদের একমাত্র কাজ। 

বিশ্লেষকদের মতে ‘লাভ জিহাদ’ বলে যে কথাটি সঙ্ঘপরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয় তার কোনও বাস্তব ভিত্তি নেই। এটা তাদের তৈরি একটি শব্দ, যার মাধ্যমে ওরা সংখ্যালঘুদের মধ্যে ঘৃণা ও বিদ্বেষের বাতাবরণ তৈরি করতে চায়। এর নেপথ্যে শুধু রাজনৈতিক স্বার্থ ছাড়া কিছু নেই। এভাবে সঙ্ঘপরিবার ও তার শাখা সংগঠনগুলো সামাজিক বিভাজনের মধ্য দিয়ে ক্ষমতায় টিকে থাকা এবং ক্ষমতাকে আরো মজবুত করার লক্ষ্যে এমন প্রচারণা চালিয়ে থাকে বলেও মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only