শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২০

মন্ত্রীসভা থেকে পদত্যাগ শুভেন্দুর

  



কলকাতা, ২৭ নভেম্বর: সব জল্পনার অবসান। মন্ত্রিত্ব থেকে পদত্যাগ করলেন শুভেন্দু অধিকারী। মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি লিখে পদত্যাগের কথা জানিয়েছেন তিনি। রাজ্যপালকে ই-মেলে পদত্যাগের কপি পাঠিয়েছেন শুভেন্দু। রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর সেই পদত্যাগের প্রাপ্তি স্বীকার করেছেন। পরিবহণ ও সেচ, জলসম্পদ, পরিবেশের দায়িত্বে ছিলেন শুভেন্দু।তবে এখনও  বিধায়ক পদ থেকে ইস্তাফা দেননি তিনি।

    মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠিতে তিনি লেখেন, 'মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী, আমি মন্ত্রিত্ব থেকে ইস্তাফা দিচ্ছি। পদত্যাগপত্র দ্রুত গ্রহণের অনুরোধ জানাচ্ছি। প্রয়োজনীয় হস্তক্ষেপের জন্য মাননীয় রাজ্যপালকেও এই পদত্যাগপত্র ই-মেল করছি। আমাকে রাজ্যের মানুষের সেবা করার সুযোগ দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ।আমি নিষ্ঠার সঙ্গে আমার কর্তব্য পালন করেছি।' অন্যদিকে শুভেন্দুর পদত্যাগপত্র পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন রাজ্যপাল। ট্যুইটারে তিনি লেখেন, 'আজ ১টা বেজে ৫ মিনিটে শুভেন্দু অধিকারীর দফতর থেকে মুখ্যমন্ত্রীকে লেখা পদত্যাগ পত্র আমাকে ফরোয়ার্ড করা হয়। সাংবিধানিক প্রেক্ষাপট থেকে বিষয়টি দেখা হবে।'

স্যানিটাইজেশনের কাজের জন্য আজ নবান্ন বন্ধ। তাই কালীঘাটের বাড়িতেই নিজের পদত্যাগ পত্র পাঠিয়ে দেন শুভেন্দু। পদত্যাগ পত্র পাঠানোর আগে এদিন সকালে রাজ্য সরকারের দেওয়া জেড ক্যাটেগরির নিরাপত্তাও ছেড়ে দেন তিনি। পাশাপাশি হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পদও ছেড়ে দেন শুভেন্দু।

    বৃহস্পতিবার এইচআরবিসি-র চেয়ারম্যানের পদ থেকে ইস্তাফা দিয়েছিলেন শুভেন্দু। তাঁর বিরুদ্ধে সব থেকে বিস্ফোরক মন্তব্য যিনি করেছিলেন, সেই সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়কে ওই দায়িত্ব দেওয়া হয়। তারপর থেকেই শুভেন্দুর দল ছাড়ার ইঙ্গিত আরও স্পষ্ট হচ্ছিল। সূত্রের খবর, মন্ত্রিত্বে থেকে কেন অরাজনৈতিক সভা, সেই নিয়ে বিতর্ক ওঠে। বিতর্কের জেরে মন্ত্রিত্ব থেকে পদত্যাগ, ঘনিষ্ঠ মহলে এমনই জানিয়েছেন শুভেন্দু।

'পদত্যাগ করলে কী করব। এখনও দলে আছেন শুভেন্দু। ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। আবারও কথা বলার চেষ্টা করব।' এমনই প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন তূণমূল সাংসদ সৌগত রায়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only