রবিবার, ২২ নভেম্বর, ২০২০

কমিটির মাধ্যমে নিযুক্ত শিক্ষকরা ডকুমেন্ট না দেখালে কড়া ব্যবস্থাঃ ডিএমই



পুবের কলম প্রতিবেদকঃ ম্যানেজিং কমিটির মাধ্যমে মাদ্রাসায় নিযুক্ত শিক্ষকরা ডকুমেন্ট না দেখালে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে ডায়রেক্টরেট অফ মাদ্রাসা এডুকেশন (ডিএমই)। মাদ্রাসা এডুকেশনের অধিকর্তা আবিদ হোসেন বলেনক, ২০১৫ সালে মাদ্রাসা শিক্ষা দফতর কমিটির মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগের নির্দেশিকা জারি করে। সেই নির্দেশিকায় জানানো হয়েছিল, শূন্যপদের জন্য বিজ্ঞপ্তি দিয়ে শিক্ষক নিয়োগ করতে পারে কমিটি। তবে বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হলেও ওই নির্দেশ এক মাসের মধ্যে তুলে নেয় ডিএমই। 

কমিটির মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগের তোড়জোড় শুরু করলেও তা অব্যাহত রাূে বহু মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ। ডিএমই-র নির্দেশানুসারে কিছু মাদ্রাসা বিজ্ঞপ্তি দিয়ে শিক্ষক নিয়োগও করে। মাদ্রাসা শিক্ষা দফতর বিজ্ঞপ্তি তুলে নিলেও নিয়োগ প্রক্রিয়া চালিয়ে যায় বহু মাদ্রাসা। অভিযোগ ওঠে, বহু মাদ্রাসা বিজ্ঞপ্তি না দিয়েই ‘ব্যাক ডেট’-এ শিক্ষক নিয়োগ করে। এতেই শুরু হয় বিতর্ক। এ দিকে মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগের বৈধতা সুপ্রিম কোর্ট দিলেও বহু মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ নিয়োগ প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখে। আদালতের নির্দেশ নিয়ে জেলা স্কুল পরিদর্শকের সম্মতিতে নিয়োগ করে। কিন্তু নিয়োগের বিষয়ে ডাইরেক্টরেট অব মাদ্রাসা এডুকেশনকে কিছু জানানো হয়নি। সর্বোচ্চ আদালত এবং কমিটির মাধ্যমে নিযুক্ত হওয়া মাদ্রাসার শিক্ষকদের অনেকের বক্তব্য, আমরা আদালতের নির্দেশে নিযুক্ত হয়েছি। তাই মাদ্রাসা শিক্ষা দফতরে ডকুমেন্ট ভেরিফিকেশনের জন্য যাওয়ার প্রয়োজন নেই বলে মনে করেন নিযুক্ত হওয়া ওই শিক্ষকদের একাংশ। সুপ্রিম কোর্ট এক নির্দেশিকায় জানিয়েছে, কমিটির মাধ্যমে বৈধভাবে নিযুক্ত হওয়া শিক্ষকদের খতিয়ে দেখেই বেতন দিতে হবে। সর্বোচ্চ আদালতের এই নির্দেশ মাদ্রাসা শিক্ষা দফতরে পাঠানো হয়। মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষদের ডিএমই জানায়, কমিটির মাধ্যমে নিযুক্ত হওয়া শিক্ষকদের ডকুমেন্ট ভেরিফিকেশন করতে হবে। তাঁদের প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট মাদ্রাসা শিক্ষা দফতরে দেখাতে হবে। কী কী ডকুমেন্ট দেখাতে হবে, তার গাইডলাইনও দেওয়া হয় মাদ্রাসা ও জেলা স্কুল পরিদর্শকদের।

 কমিটির মাধ্যমে নিযুক্ত হওয়া শিক্ষকদের ডিএমই দফতরে ডকুমেন্ট ভেরিফিকেশনের জন্য ডাকা হয়, ৯৯ শতাংশ শিক্ষক-শিক্ষিকা মাদ্রাসা শিক্ষা দফতরে দেখা করেনি বলে জানিয়েছে ডিএমই। আদালতের নির্দেশ, নিযুক্ত হওয়া শিক্ষকদের প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট খতিয়ে দেখে বেতন দিতে হবে। ডিএমই’র বক্তব্য, কমিটির মাধ্যমে নিযুক্ত শিক্ষকরা ডিএমই দফতরে হাজির না হলে কীভাবে ডকুমেন্ট খতিয়ে দেখা হবে। ওই শিক্ষকদের বিষয়ে মাদ্রাসা শিক্ষা দফতর আরও কড়া পদক্ষেপ নেবে বলে জানিয়েছে ডিএমই।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only