রবিবার, ৮ নভেম্বর, ২০২০

করোনা পরিস্থিতি কাটলেই ফের পুলিশ ট্রেনিংয়ের উদ্যোগ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগমের



পুবের কলম প্রতিবেদকঃ প্রতিটি জেলায় পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারের ব্যবস্থা করছে পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগম। বিত্ত নিগমের এক আধিকারিক বলেন সংখ্যালঘু ও পিছিয়েপড়া ছাত্রছাত্রীদের কথা ভেবে বিভিন্ন ট্রেনিং চালু করা হয়েছে। করোনা পরিস্থিতির কারণে পুলিশ ট্রেনিং করানো যাচ্ছে না। তবে রাজ্য সরকারের সবুজ সঙ্কেত মিললেই পুনরায় জেলায় জেলায় এই ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করবে বিত্ত নিগম। 

 ২০১৭-’১৮ সালে পড়ুয়াদের আবেদনের ভিত্তিতে ‘পুলিশ ট্রেনিং’ শুরু করে বিত্ত নিগম। ওই বছর আবেদন করেছিল ৫ হাজার ১৫৭ জন। ২০১৮-’১৯ সালে আবেদনকারীর সংখ্যা ছিল ৩ হাজার ৪০৩ জন। ২০১৯-’২০ সালে আবেদনকারী ছিল ১৪০০ জন। ওই বছর  কোভিড-এর কারণে দ্বিতীয় পর্যায়ের কোচিং স্থগিত হয়ে যায়। প্রথম বছর নিয়োগ পেয়েছিল ২০-২২ জন। পরবর্তীতে কোচিং হলেও নিয়োগের ফল প্রকাশ হয়নি বলে জানিয়েছে বিত্ত নিগম। তবে পরবর্তীতে সেই সংখ্যাটা বাড়বে বলে আশা নিগমের। 

 বিত্ত নিগমের এক আধিকারিক আরও জানান লিখিত পরীক্ষার জন্য গুরুত্ব দেওয়া হত। এবার থেকে প্রথমেই ফিজিক্যাল ফিটনেসের উপর বেশি জোর দেওয়া হবে। যে প্রার্থীদের কোচিং করা হয়। তা পুলিশ নিয়োগ বোর্ডের গাইডলাইন মেনেই ভর্তি নেওয়া হয়। বিনামূল্যের এই কোচিংয়ে পড়ুয়ারা একটু সচেতন হলেই চাকরি পেতে সহায়তা হয় বলে জানিয়েছে বিত্ত নিগমের আধিকারিকরা। 

 পুলিশের ঘাটতি অর্ধেকের বেশি মেটানোর লক্ষ স্থির করেছে রাজ্য সরকার। সম্প্রতি আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন ২৪ হাজার কনস্টেবল ও ২৪০০ এসআই নিয়োগ করা হবে। এর ফলে প্রশাসনের চাপ কমবে। 

 রাজ্য পুলিশ নিয়োগ বোর্ড সূত্রের খবর বিভিন্ন পদ মিলিয়ে ঘাটতি ছিল ৪৫ হাজার। পুলিশের শূণ্যপদ সহ সংখ্যাটা ৫০ হাজারের কাছাকাছি। সেই নিরিূে তিন বছরের কনস্টেবল ও এসআই মিলিয়ে সাড়ে ২৬ হাজার পদে নিয়োগ হলে অর্ধেকের বেশি শূণ্যপদ পূরণ হবে। 

 দেশের বিভিন্ন রাজ্যের পুলিশ বাহিনীর পরিকাঠামো নিয়ে প্রতি বছর তথ্য প্রকাশ করে কেন্দ্রীয় সংস্থা পিপিআরডি। গত বছরের সর্বশেষ তথ্য হল এ রাজ্যের পুলিশের মোট শূণ্যপদ ছিল ৫৫ হাজারের বেশি। রাজ্য পুলিশের রিক্রুটমেন্ট বোর্ড নিয়োগ করলেও বিপিআরপিড রিপোর্ট পেশ করে। ২০১৯ সালের সেই রিপোর্ট অনুসারে এ রাজ্যে প্রতি ৬৩২ জন নাগরিক পিছু একজন করে পুলিশ কর্মী রয়েছেন। 

 পুলিশ দিবসে রাজ্য পুলিশের ডিজি বীরেন্দ্র জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে কলকাতা ও রাজ্য ফোর্স মিলিয়ে এ রাজ্যে পুলিশের সংখ্যা প্রায় ৩ লক্ষ। এর মধ্যে ১ লক্ষ ৫ হাজার সিভিক ভলেন্টিয়ার এবং ৩০ হাজার এনভিএফ ও হোমগার্ড রয়েছেন।  পুলিশের শূণ্যপদ পূরণে সুপ্রিম কোর্টেরও নির্দেশ রয়েছে। তাই দ্রুত সেই পদ পূরণের উদ্যোগ নিয়েছে রাজ্য সরকার। চলতি মাসেই ১৪ হাজারের মতো পুলিশ নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি বের হতে পারে। ইতিমধ্যে পুলিশের টেকনিক্যাল পদে নিয়োগ শুরু হয়েছে। 


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only