শনিবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২০

গোলান মালভূমিতে পম্পেও কেন? প্রশ্ন রাশিয়ার



পুবের কলম আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ বিতর্কিত গোলান মালভূমিকে সিরিয়ার সার্বভৌম ভূখণ্ড বলে অনেক আগেই রায় দিয়েছে আন্তর্জাতিক আদালত। তারপরেও সেখানে গিয়ে ইসরাইলের হয়ে ওকালতি করা এবং দাদাগিরি দেখানোয় মার্কিন বিদেশমন্ত্রী মাইক পম্পেওয়ের সফর নিয়ে প্রশ্ন তুলল রাশিয়া। গত সপ্তাহে জর্ডন নদীর পশ্চিমতীর এবং গোলান মালভূমি অঞ্চলে সফর করেন তিনি। তারপর সউদি আরব গিয়ে সে দেশের ক্রাউন প্রিন্সের সঙ্গে ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু ও মোসাদ-কর্তাকে নিয়ে রাতের অন্ধকারে গোলটেবিল বৈঠক করেন পম্পেও। যদিও মধ্যরাতের সেই গোপন বৈঠকের কথা ফাঁস হয়ে গিয়েছে। তবে সউদি সরকার এখনও তা স্বীকার করেনি। উল্লেখ্য, এই প্রথম কোনও মার্কিন মন্ত্রী পশ্চিমতীর ও গোলান মালভূমিতে পা রাখলেন। যা নিয়ে তীব্র সমালোচনা চলছে আন্তর্জাতিক মহলে। ফিলিস্তিন, সিরিয়া, ইরান, তুরস্কের পর এবার পম্পেও-এর সফরের নিন্দা করল রাশিয়াও। 

বৃহস্পতিবার নিরাপত্তা পরিষদে সিরিয়া ইস্যুতে আলোচনায় অংশ নিয়ে ট্রাম্প-পম্পেওকে তোপ দেগে রাষ্ট্রসংঘে নিযুক্ত রুশ প্রতিনিধি ভ্যাসিলি নেবেনজিয়া বলেন, আন্তর্জাতিক আদালত এবং সিরিয়া-ফিলিস্তিনের সার্বভৌমত্ব ও ভৌগোলিক অখণ্ডতাকে সম্মান দেখিয়ে মধ্যপ্রাচ্য সংকট নিরসনে উদ্যোগী হওয়া উচিত। তা না করে আমেরিকা চেষ্টা করছে কীভাবে চলমান সংকট আরও দীর্ঘায়িত হয়। এই নোংরা ষড়যন্ত্র থেকে বেরিয়ে আসতে ট্রাম্প ও পম্পেওকে আহ্বান জানান তিনি। বর্ষীয়ান রুশ কূটনীতিবিদ নেবেনজিয়ার কথায়, পম্পেও-এর মধ্যপ্রাচ্য সফর উসকানিমূলক।  


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only