শুক্রবার, ১৮ ডিসেম্বর, ২০২০

শুভেন্দু দল ছাড়তেই মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি ধনকরের



পুবের কলম প্রতিবেদকঃ ­ বিধায়ক পদে ইস্তফার আগেই নিরাপত্তা নিয়ে রাজ্যপালের হস্তক্ষেপ চেয়েছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। বলেছিলেন, তাঁকে মিথ্যে মামলায় ফাঁসানো হতে পারে। বৃহস্পতিবার শুভেন্দু তৃণমূলের থেকে সব সংশ্রব ত্যাগ করার পরেই সক্রিয় হলেন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। এ দিন তিনি রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে একটা চিঠি পাঠিয়েছেন। তাতে তিনি লিখেছেন, শুভেন্দুর রাজনৈতিক অবস্থান বদলের সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে এবং তার অনুগামীদের বিভিন্ন ফৌজদারি মামলায় ফাঁসানোর চেষ্টা হচ্ছে বলে তাঁর কাছে অভিযোগ এসেছে। 


রাজ্যপাল জানতে চেয়েছেন, মন্ত্রিসভার এক পুরোনো সহকর্মী হঠাৎ কেন এমন কথা বলছেন! একইসঙ্গে তিনি জানতে চান, এ বিষয়ে কি ব্যবস্থা নিয়েছেন। এ দিন রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা নিয়েও সরব হয়েছেন রাজ্যপাল। চিঠিতে তিনি লিখেছেন, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে বারবার রিপোর্ট চাওয়া হলেও মুখ্যসচিব, স্বরাষ্ট্রসচিব এবং ডিজি এ বিষয়ে তাঁকে কোনওভাবেই সাহায্য করছেন না। এই অবস্থায় রাজ্যপালের অনুরোধ রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলার পরিস্থিতি পর্যালোচনার জন্য আসুন দ্রুত একসঙ্গে আলোচনায় বসি। আলোচনার মাধ্যমেই এই পরিস্থিতির উন্নতি ঘটনো উচিত। 


শুভেন্দু অধিকারীর গেরুয়া শিবিরে নাম লেখানোর খবর আসতেই রাজ্যপাল যে সক্রিয় হবেন তা একপ্রকার প্রত্যাশিতই ছিল। এ দিন প্রত্যাশা মতো সুর চড়ান রাজ্যপাল। তবে অতীতে যেমন বিভিন্ন সময়ে রাজ্যপাল কিছু বললেই তৃণমূলের তরফে তার প্রত্য‍ুত্তর দেওয়া হয়েছে। এ দিন কিন্তু তেমনটি হয়নি। বরং এ দিন রাজ্যের শাসকদলের তরফে নীরবতাই পালন করা হয়েছে।  বিগত সময়ে রাজ্যপাল একাধিকবার রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা নিয়ে সরব হয়েছেন। কিন্তু রাজ্যপালের অভিযোগ, তাঁকে বিশেষ কোনও আমল দিচ্ছে না রাজ্য সরকার। বরং দিন দিন রাজের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি হয়েছে।  এই অবস্থায় রাজ্যপাল আবার সুর চড়ানোয় সরকারের তরফ থেকে কি বলা হয়, সেদিকে রাজনৈতিক মহলের নজর রয়েছে। 


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only