বুধবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২০

মা ফিরে পেলো তাঁর হারানো সুর

 



দেবশ্রী মজুমদার, বীরভূম, ১ ডিসেম্বর:  গ্রামের ছেলে গ্রামে ফিরে এসেছে। আর সেটা প্রায় বিশ বছর পর। এক সময় পাড়া প্রতিবেশীরা ভেবে বসেছিল, আর বোধহয় তাদের হারানো ছেলে উত্তম আর বাড়ি ফিরবে না। কিন্তু, মায়ের আশা হারিয়ে যায় নি। তাই মঙ্গলবার বাড়ি ফিরে এলো তার " হারানো সুর"। 

না, উত্তম সুচিত্রার হারানো সুর ছায়া ছবির গল্প নয় মোটে। কোন ট্রেন দুর্ঘটনার কবলে স্মৃতি হারানোর ঘটনা নয়। আর এই উত্তম, মানে উত্তম লেটের ছোট থেকেই ছিল মাথার ব্যামো। একদিন নলহাটি থানার কানিসাইল গ্রাম থেকে ১০ বছরের বালক উত্তম লেটের রামপুরহাট রেলওয়ে স্টেশনে চেপে সেই যে যাওয়া, আর ফেরা হয় নি, ঠিকানা হারিয়ে। 

হঠাৎ স্মৃতি ফেরায় নিজের গ্রামে ফিরে আসে উত্তম। গ্রামের রাস্তা ঘাট অনেকটাই বদলেছে। তবুও হারিয়ে যাওয়া স্মৃতির হিসেবের খাতাটা মিলিয়ে মিলিয়ে দেখছিল সে। আর তাকে দেখতে ভিড় জমিয়ে ছিল পাড়া প্রতিবেশীরা। মা বাসন্তী দেবী তাঁর কপালের দাগ দেখে চিনতে পেরেছেন তাঁর হারাধন উত্তমকে। উত্তমও চিনতে পেরেছে তাঁর মাকে। ছেলে এখন বর্তমানে খড়গপুরে থাকেন। তিনি বলেন, ওখানে মজদুরের কাজ করি। ওখানেই থাকবো। তবে, একবার সবাইকে নিয়ে আসবো এখানে।  পঞ্চাশ বছর বয়স্কা বাসন্তী লেটের কেটেছে কত উদ্বিগ্ন দিন রাত। আজ ছেলেকে জড়িয়ে ধরেছেন বুকে। তিনি বলেন, অনেক খোঁজাখুঁজি করে ছেলের কোন সন্ধান পাই নি। তবে, আমি বরাবরই বলতাম, ছেলে আমার বেঁচে আছে। আমি খুব খুশি। ছেলে আমার বিয়ে করেছে। দুই নাতনি ও এক নাতি। বলেছি, বৌমা ও সবাইকে নিয়ে একবার বাড়ি আসতে। ছেলে যেখানেই থাক, ভালো থাক। বেঁচে থাক। তাতেই আমি খুশি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only