বৃহস্পতিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০২০

অমিত শাহের শান্তি নিকেতনে আগমনের প্রস্তুতি: উপাচার্যের কাছে স্মারকলিপি পড়ুয়াদের একাংশের



দেবশ্রী মজুমদার, শান্তিনিকেতন: শান্তি নিকেতনে মিছিল ছাড়াও, ২০ ডিসেম্বর কবি আশ্রমে যাবেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ। আর তাতেই ক্ষুব্ধ আশ্রমের পড়ুয়াদের একাংশ।  এব্যাপারে বৃহস্পতিবার তাঁরা স্মারকলিপি জমা দেন বিশ্ব ভারতী কর্তৃপক্ষের কাছে।  ২০ ডিসেম্বর বোলপুর ডাকবাংলা মাঠ থেকে চৌরাস্তা পর্যন্ত পদযাত্রা করবেন অমিত শাহ।


তবে শান্তি নিকেতন আশ্রমে আসা নিয়ে পড়ুয়াদের আপত্তি, কবি ভারভারা রাওয়ের মত কবিকে জেলে বন্দী করে, তার কণ্ঠ রোধ করে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মত মুক্ত মনের কবি তীর্থ ভূমিতে তাঁর আগমন। বিজেপি ও আর এস এসের যৌথ উদ্যোগে চলছে ফ্যাসিবাদ। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা জাতীয় সঙ্গীতকে বাদ দেওয়ার ষড়যন্ত্র। আবার শান্তি নিকেতনে এসে তারাই ভণ্ডামি করে। গান্ধীজির গলাই মালা দিয়ে, গান্ধী হত্যাকারীকে তারাই হত্যা করে। এই সমস্ত একগুচ্ছ অভিযোগ নিয়ে, পড়ুয়াদের একাংশ প্রতিবাদে সামিল হতে চলেছে।


জানা গেছে,  শান্তিনিকেতনের শ্যামবাটি এলাকায় বাউল শিল্পী বাসুদেব দাস বাউলের মধ্যাহ্নভোজন সারবেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। শুনবেন বাউল গান।   ব্যবস্থাপনার জন্য এদিন বিজেপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অরবিন্দ মেনন ও দলের বীরভূম জেলা সভাপতি শ্যামাপদ মণ্ডল।বাউল শিল্পীর বাড়িতে আসেন। 


বিজেপি সূত্রে জানা গেছে, প্রথমে বিশ্বভারতীর উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তীর সঙ্গে দেখা করবেন। পরে ঘুরে দেখবেন বিশ্বভারতী চত্বর ।  আছে এক গুচ্ছ কর্মসূচি। প্রায় দু'ঘণ্টা বিশ্বভারতীতে কাটানোর পর শান্তিনিকেতনে এক বাউল শিল্পীর বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজন সারবেন অমিত শাহ। পদে থাকবে বাড়িতে ভাত, আলু পোস্ত, ডাল ইত্যাদি।


পুরো প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে এদিন আসেন বিজেপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অরবিন্দ মেনন ও জেলা সভাপতি শ্যামাপদ মণ্ডলসহ অন্য নেতারা। বাউল শিল্পীর স্ত্রী উর্মিলা দাস বলেন, " খুব আনন্দের।  আমাদের বাড়িতে  বসে খাবার খাবেন। ভাত, ডাল, আলু পোস্ত এইসব রান্না করব। বাউল গান শুনবেন বলেছেন তিনি। খুব আনন্দের বিষয় আমাদের কাছে ।"

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only