রবিবার, ২০ ডিসেম্বর, ২০২০

সংরক্ষণ নয়, মেধাই মাপকাঠি, চাকরির যোগ্যতা নিয়ে সুপ্রিম রায়



পুবের কলম, নয়াদিল্লিঃ আসন সংরক্ষিত থাকার জন্য বহু যোগ্য প্রার্থী চাকরির ক্ষেত্রে সুযোগ থেকে বঞ্চিত হন। এই ‘কোটা’ ব্যবস্থার বিরুদ্ধে রায় দিয়ে শুক্রবার সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, কেবলমাত্র সংরক্ষণের জন্য কর্মসংস্থানে বঞ্চিত হতে পারেন না যোগ্য চাকরিপ্রার্থীরা। এটা বাঞ্ছনীয় নয়। বিচারপতি উদয় ললিতের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ জানিয়েছে, সংরক্ষণ সংক্রান্ত নীতি স্মরণে রেখেও অগ্রাধিকার দিতে হবে দক্ষদের। সরকারি চাকরির প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় ‘কোটা’ নয়, যোগ্যতার নিরিূে প্রার্থীকে বিবেচনা করা উচিত।


প্রসঙ্গত, উত্তরপ্রদেশে মহিলা পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগে স্বাধীনতা সংগ্রামী, প্রাক্তন সেনাকর্মী প্রমুখের অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে। অথচ এই বিধি মানা হয়নি মহিলা প্রার্থীদের বেলায়। এর আগে একাধিক রায়ে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, তপশিলি জাতি ও উপজাতি, অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণির প্রার্থীরা সাধারণ শ্রেণিতে প্রতিযোগিতা করতে পারেন। তাঁদের জায়গায় সুযোগ পেতে পারেন অন্য প্রার্থী। অথচ স্বাধীনতা সংগ্রামী বা প্রাক্তন সেনাকর্মীদের শ্রেণিতে আসন শূন্য থাকলেও সেই জায়গা পূরণ করতে পারবেন না এসসি, এসটি ও ওবিসি প্রার্থীরা। 


শুক্রবার শীর্ষ আদালত খারিজ করল এই প্রচলিত ধারাকে। বিচারপতি এস রবীন্দ্র ভাট তাঁর রায়ে লেখেন, সরকারি চাকরিতে সার্বিক প্রতিনিধিত্ব সুনিশ্চিত করে সংরক্ষণ। তবে এই নীতিকে অপরিবর্তনযোগ্য মনে করা অনুচিত। যোগ্য প্রার্থী যেন অবহেলিত না হন, সেই বিষয়ে বিশেষভাবে নজর দিতে হবে। বিচারপতি ললিতও তাঁর রায়ে লিখেছেন যে, শূন্যপদ পূরণ করতে যোগ্য প্রার্থীর পরিবর্তে নিয়োগ করা যাবে না সংরক্ষিত শ্রেণির অযোগ্য প্রার্থীকে। এতে সাধারণ শ্রেণির যোগ্যতাসম্পন্ন প্রার্থী অবিচারের শিকার হবেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only