বৃহস্পতিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০২০

শেষ মুহূর্তে অক্সফোর্ডে মমতার বক্তৃতা স্থগিত



পুবের কলম প্রতিবেদকঃ যাবতীয় তোড়জোড় হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু শেষ মুহূর্তে অক্সফোর্ড ইউনিয়নের বিতর্ক সভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্য পেশের অনুষ্ঠান স্থগিত করল কতৃর্পক্ষ। অনিবার্য কারণে ওই অনুষ্ঠান স্থগিত রাখার কথা জানিয়েছে অক্সফোর্ড কতৃর্পক্ষ। বুধবার দুপুরেই অনুষ্ঠানে বক্তব্য পেশ করার কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রীর।

বুধবার দুপুর দু’টো নাগাদ পশ্চিমবঙ্গের স্বরাষ্ট্র দফতরের তরফে টু্ইটারে বলা হয়, ‘আজ বিকেলে অক্সফোর্ড ইউনিয়ন ডিবেটিং সোসাইটিতে (অক্সফোর্ড ইউনিয়নের বিতর্কসভা) ভাষণ দেওয়ার কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। কিন্তু আচমকাই শেষ মুহূর্তে আয়োজকরা সেই অনুষ্ঠান স্থগিত রাখার এবং নয়া সময় চেয়ে সেই অনুষ্ঠান করার আর্জি জানান।’

রাজ্যের তরফে জানানো হয়েছে, তবে ঠিক কী কারণে ভাষণের অল্প কিছুক্ষণ আগে অনুষ্ঠান স্থগিত করে দেওয়া হয়েছে, সে বিষয়ে স্পষ্টভাবে কিছু জানানো হয়নি। স্বরাষ্ট্র দফতরের তরফে বলা হয়েছে, ‘কিছুক্ষণ আগে কিছু অপ্রত্যাশিত সমস্যার কারণ দর্শিয়ে আয়োজকদের তরফ থেকে ফোনে সেই অনুরোধ করা হয়েছে। অক্সফোর্ড ইউনিয়নে যে অনুষ্ঠান ছিল, আজ তা বাতিল হয়ে গিয়েছে।’

বিশ্বের প্রথম সারির ডিবেটিং সোসাইটি হিসেবে পরিচিত অক্সফোর্ড ইউনিয়ন। মার্গারেট থ্যাচার, থেরেসা মের পর তৃতীয় মহিলা রাজনীতিক হিসেবে বক্তব্য পেশ করার কথা ছিল মমতার। বুধবার দুপুর আড়াইটে নাগাদ থেকে সেই অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার কথা ছিল। বিকেল পাঁচটা নাগাদ নবান্ন থেকে ভিডিয়ো কনফারেন্সের মাধ্যমে ভাষণ দেওয়ার কথা ছিল মমতার। উনিশ শতকে বিতর্ক সভা হিসেবে যে অক্সফোর্ড ইউনিয়ন তৈরি হওয়ার পর অ্যালবার্ট আইনস্টাইন, মাদার টেরেসা, স্টিফেন হকিং, দলাই লামার মতো বিখ্যাত মানুষরা ভাষণ দিয়েছিলেন। রাজ্য সরকারের এক আধিকারিক বলেছিলেন, ‘চলতি বছর জুলাইয়ে উনি (মমতা) আমন্ত্রণপত্র পেয়েছিলেন এবং তা গ্রহণ করেন। ঠিক ছিল, রাজ্য সরকারের কয়েকটি প্রকল্প তুলে ধরবেন মুখ্যমন্ত্রী।’

দিল্লির সেন্ট স্টিফেনস কলেজে ২০১৮ সালের ১ অগস্ট ছাত্রছাত্রীদের দু’টি সংগঠন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর বত্তৃ«তার আয়োজন করেছিল। বিষয়বস্তু ছিল, ‘ভারত নামক ভাবনা’। নেহরু-গান্ধির ভারতই যে প্রকৃত ভারত, সে বিষয়েই বলার কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রীর। কিন্তু ঠিক দু’দিন আগে, আয়োজকদের তরফে মুখ্যমন্ত্রীকে ওই অনুষ্ঠান বাতিলের কথা জানিয়ে দুঃখ প্রকাশ করা হয়।

চিন সফরের সময়ও চিনা সরকারের তরফে কোন প্রতিনিধি মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করবেন, তা চূড়ান্ত না হওয়ায় শেষ মুহূর্তে বাতিল হয়ে যায় সেই সফর। রাজ্য সরকারের তরফে অভিযোগে জানানো হয়, মুখ্যমন্ত্রীর সফর আয়োজনে যথেষ্ট তৎপরতা দেখায়নি বিদেশমন্ত্রক। অভিযোগ খারিজ করে সুষমা স্বরাজের দফতর। 

একইভাবে বাতিল হয় মুখ্যমন্ত্রীর শিকাগো সফর। ২০১৭ সালের আগস্টের শেষে সেখানে স্বামী বিবেকানন্দের শিকাগো বক্তৃতার ১৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখার কথা ছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জানা যায়, মুখ্যমন্ত্রীর সফর বানচাল করতে সেখানে তৎপর হয়েছিল সংঘ-ঘনিষ্ঠ প্রবাসী বাঙালিদের একাংশ। তবে উদ্যোক্তাদের তরফে জানানো হয় রামকৃষ্ণমিশনের এক সন্ন্যাসীর অকালপ্রয়াণে বাতিল হয়েছে অনুষ্ঠান। 

এ দিন অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিতর্কসভা বাতিল হয়ে যাওয়ার পর নবান্ন বা দলের তরফে প্রকাশ্যে কোনও মন্তব্য করা হয়নি। তবে ঘরোয়া আলোচনায় অনেকে উষ্মা প্রকাশ করেছে। দলের এক প্রবীণ নেতার কথায়, ‘শিকাগো, চিন, সেন্ট স্টিফেন্সের পর এবার অক্সফোর্ড! মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি-আরএসএসের ঘুম কেড়ে নিয়েছেন। কিন্তু ওরা যত চেষ্টাই করুক, দিদিকে দমিয়ে রাখা যাবে না।’ জুলাই মাসে এই বিতর্কসভায় যোগ দিতে মমতাকে অক্সফোর্ড যাওয়ার আমন্ত্রণ জানায় অক্সফোর্ড ইউনিয়ন ডিবেটিং সোসাইটি। দেশের প্রথম মহিলা মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে এই আমন্ত্রণ পেয়েছেন তিনি। তাতে আহ্লাদিত ছিল প্রশাসনও। কারণ, অক্সফোর্ড ইউনিয়নের বিতর্কের গরিমা অবিসংবাদিত। একাধিক মার্কিন রাষ্ট্রপতি , ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী, অ্যালবার্ট আইনস্টাইন, মাইকেল জ্যাকসন অতীতে ওই বিতর্কে অংশ নিয়েছেন। জানা গিয়েছে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিতর্কে অংশ নেবেন ধরে নিয়ে প্রায় ৬০০ প্রশ্ন এসেছিল অনলাইনে। মূলত ছাত্রছাত্রীরাই সেইসব প্রশ্ন পাঠিয়েছিলেন। তার উত্তর এ দিন দেওয়ার কথা ছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। কিন্তু শেষমেশ ব্যাপারটির একটি তিক্ত পরিণতিই হল। অনেজেই প্রশ্ন তুলছেন, বারবার শেষ মুহূর্তে এভাবে মুখ্যমন্ত্রীকে আটকানোর পেছনে কোনও রাজনৈতিক অভিসন্ধি কাজ করছে না তো!


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only