শনিবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০২০

৮ ডিসেম্বর ভারত বন্ধের ডাক প্রতিবাদী কৃষকদের



পুবের কলম প্রতিবেদকঃ কৃষকদের সঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকারের আলোচনায় এখনও কোনও সমাধানসূত্র বেরোয়নি। পঞ্চম দফার আলোচনার আগে নিজেদের অবস্থান শক্ত করে আগামী মঙ্গলবার ভারত বন্ধ ডাকল কৃষক সংগঠনগুলি। সেদিন দিল্লিতে টোল প্লাজাগুলি তারা দখল করে নেবেন, সেই হুঁশিয়ারিও অগ্রিম দিয়ে রেখেছেন কৃষকরা। 

সরকারের যাবতীয় প্রস্তাব এখনও পর্যন্ত খারিজ করেছে কৃষকরা। তাদের সাফ কথা, আইন প্রত্যাহার করো ও ন্যূনতম সহায়ক মূল্যকে আইনি স্বীকৃতি দাও। 

এ দিন প্রতিবাদী চাষিদের তরফ থেকে গুরনাম সিং চন্দোনি বলেন যে শনিবারের বৈঠকে যদি তাঁদের দাবি সরকার মেনে না নেয়, তাহলে আরও তীব্রতা বাড়বে বিক্ষোভের। আর এক চাষি নেতা হরবিন্দর লখওয়াল বলেন যে আট তারিখ ভারত বন্ধ হবে ও টোল প্লাজা দখল করে নেওয়া হবে। দিল্লিতে আসার সমস্ত রাস্তা আগামী কয়েকদিনের মধ্যে তারা ব্লক করে দেবেন বলেও হুমকি দেন তিনি। 

ইতিমধ্যেই ১২ লক্ষের বেশি কৃষক অবস্থান করছেন দিল্লির কাছে। হরিয়ানা,উত্তর প্রদেশ,পঞ্জাব, উত্তরাখণ্ডেও ছড়িয়েছে বিক্ষোভ। সেই রেশ গিয়ে পড়েছে দক্ষিণ ভারতের রাজ্যগুলিতে।

কেন্দ্রীয় কৃষি আইনের বিরোধিতায় দিল্লির সীমানায় বিক্ষোভ প্রদর্শন দেখাচ্ছেন কৃষকরা। এই পরিস্থিতিতে দিল্লিতে প্রবেশের রাস্তাগুলি অবরোধ করে রেখেছেন প্রতিবাদী কৃষকরা। তবে এই অবরোধকে সরানোর আর্জি জানিয়ে মামলা দায়ের হল সুপ্রিম কোর্ট। মামলাকারী বক্তব্য, এই অবরোধের জেরে জরুরি স্বাস্থ্য পরিষেবা আটকে যাচ্ছে। তাই এই অবরোধ সরাতে হবে।

বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হওয়া কেন্দ্র-কৃষক বৈঠক ছিল অমীমাংসিত। সেই বৈঠক শেষে অল ইন্ডিয়া কিষান সভার নেতা বলকরণ সিং ব্রার জানান, তিন আইনেই সংশোধনের কথা বলেছে সরকার। কিন্তু কৃষক সংগঠনগুলির তরফে পরিষ্কার জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, আইনই প্রত্যাহার করতে হবে। ন্যূনতম সহায়ক মূল্য সংক্রান্ত আইন খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছে সরকার।

এ দিকে মোদি সরকারের নয়া কৃষি আইনের প্রতিবাদে কৃষকদের বিক্ষোভকে সমর্থন জানালেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই পঞ্জাব-হরিয়ানার বিক্ষোভরত কৃষকদের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেছেন তিনি। মোদি সরকারের নয়া কৃষি নীতির প্রতিবাদে দেশব্যাপী আন্দোলনে নামার ঘোষণা করল তৃণমূল কংগ্রেস।

দিল্লিতে কৃষক বিক্ষোভের মাঝেই সারা ভারত কৃষক সভার সাধারণ সম্পাদক হান্নান মোল্লার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হল। বাংলার উলুবেড়িয়ার প্রাক্তন সিপিআইএম সাংসদ, কৃষক নেতা হান্নান মোল্লা দিল্লি পুলিশের দায়ের করা এফআইআরের কথা স্বীকার করে নিয়েছেন। 

কৃষক আন্দোলন নিয়ে বিতর্কিত টু্ইটের পর থেকে অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াতকে পড়তে হয়েছে কড়া সমালোচনার মুখে। এবার দিল্লি শিখ গুরদোয়ার ম্যানেজমেন্ট কমিটির এক সদস্য আইনি নোটিশ পাঠালেন তাঁকে।

বিতর্কের সূত্রপাত কৃষক আন্দোলনে যোগ দেওয়া এক বৃদ্ধাকে ‘শাহিনবাগের দাদি’ বিলকিস বানোর সঙ্গে গুলিয়ে ফেলা ও তাঁর সম্পর্কে বিরূপ মন্তব্য করার পরই। কঙ্গনা কটাক্ষ করে লিখেছিলেন‘একে তো ১০০ টাকার বিনিময়েই পাওয়া যায়।’ এরপর থেকেই নেটিজেনদের অনেকেই ফুঁসে ওঠেন কঙ্গনার বিরুদ্ধে। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only