বুধবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২০

বাবার করা গুরুতর অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিলেন শেহলা রশিদ



পুবের কলম প্রতিবেদকঃ দিল্লির জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্রনেত্রী শেহলা রশিদের পরিত্যাজ্য বাবা আবদুল রশিদ শোরা মেয়ের বিরুদ্ধে সোমবার গুরুতর অভিযোগ করে তাঁর বিরুদ্ধে তদন্তের দাবি জানিয়েছেন। 

তাঁর বক্তব্য, শেহলার বিরুদ্ধে তদন্ত করা উচিত। তিনি শেহলার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন যে শেহলা কাশ্মীর উপত্যকার রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার জন্য মোটা অঙ্কের অর্থ নিয়েছিলেন। শেহলা এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, তার বাবার বিরুদ্ধে তাদের পক্ষ থেকে গার্হস্থ্য হিংসার অভিযোগ করার পরে তাঁর বাবা এই স্তরে নেমে এসেছেন। শেহলা তার বাবাকে স্ত্রীকে মারধরকারী ব্যক্তি হিসেবে উল্লেখ করেছেন। 

শেহলা তাঁর বাবার অভিযোগকে ‘জঘন্য ও ভিত্তিহীন’ বলে অভিহিত করেছেন। শেহলা বলেন, পারিবারিক সহিংসতার মামলায় পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ দায়েরের পরে, ১৭ নভেম্বর একটি আদালত তাঁর বাবার শ্রীনগরের বাসায় প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছিল।

সোমবার, শেহলার বাবা আবদুল রশিদ শোরা এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশের মহাপরিচালকের উদ্দেশ্যে তিন পৃষ্ঠার চিঠি প্রকাশ করে দাবি করেন যে, তিনি তার মেয়ে শেহলা, তার নিরাপত্তারক্ষী, বোন এবং তার মায়ের কাছ থেকে জীবনের ঝুঁকিতে রয়েছেন। শোরার দাবি, কাশ্মীরের রাজনীতিতে যোগ দিতে তিনি (শেহলা) প্রাক্তন বিধায়ক ইঞ্জিনিয়ার রশিদ ও ব্যবসায়ী জহুর ওয়াতালীর কাছ থেকে তিন কোটি টাকা নিয়েছিলেন। জাতীয় তদন্ত সংস্থা (এনআইএ) সন্ত্রাসবাদে অর্থায়নে জড়িত থাকার অভিযোগে গতবছর রশিদ ও ওয়াতালিকে গ্রেফতার করেছিল।

জেএনইউয়ের ওই প্রাক্তন ছাত্রনেত্রী শেহলা রাজনীতিতে যোগ দেন এবং আইএএসএ শীর্ষস্থানে থাকা শাহ ফয়সাল কর্তৃক শুরু করা জম্মু-কাশ্মীর পলিটিক্যাল মুভমেন্টের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হন। শেহলার বাবা আবদুল রশিদ শোরা শেহলা পরিচালিত বেসরকারি সংস্থাগুলি (এনজিও) এবং তার কন্যাদের এবং তাদের মায়ের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট তদন্তেরও দাবি জানিয়েছেন।   

এর জবাবে শেহলা একটি টু্ইট বার্তায় বলেছেন, ‘আপনাদের মধ্যে অনেকেই ব্যক্তি আমার বাবা,আমার, আমার মা ও বোনের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করেছেন তার ভিডিয়ো দেখেছেন। সংক্ষিপ্ত কথায় এবং স্পষ্টভাবে বলতে গেলে তিনি এমন একজন ব্যক্তি যিনি তার স্ত্রীকে মারধর করা ও গালাগালি করা ব্যক্তি। আমরা তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরে পালটা জবাবে তিনি ওই কৌশল অবলম্বন করেছেন। 

শেহলা ওই অভিযোগকে ‘ভিত্তিহীন ও বাজে কথা’ বলে অভিহিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘আমার মা সারাজীবন প্রচুর সহিংসতা ও নির্যাতনের মুখোমুখি হয়েছেন। পারিবারিক কারণে তিনি চুপ করেছিলেন। এখন যখন আমরা  তাঁর (বাবা) ওই ক্রিয়াকলাপের বিরুদ্ধে কথা বলতে শুরু করেছি, তখন তিনি আমাদের বদনাম করতে শুরু করেছেন। ওই অভিযোগকে কারও গুরুত্ব দেওয়ার দরকার নেই বলেও শেহলা রশিদ মন্তব্য করেছেন।   

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only