বুধবার, ২৩ ডিসেম্বর, ২০২০

তেলুগুকে সরকারি ভাষার স্বীকৃতি রাজ্য সরকারের



পুবের কলম প্রতিবেদকঃখড়গপুরের মানুষের দাবি মেনে বড় সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য মন্ত্রিসভা। খড়গপুরের সিংহভাগ বাসিন্দা তেলুগু। তাঁদের দীর্ঘদিনের দাবি মেনে ‘তেলেগু’কে রাজ্যের সরকারি ভাষা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হল। মঙ্গলবার নবান্নে রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সম্মতিক্রমে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। পাশাপাশি, এই তেলুগুভাষীরা ভাষাগত সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মর্যাদা পেলেন। রাজ্য মন্ত্রিসভার এই সিদ্ধান্ত একেবারেই ভোটমুখী বলে মত রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের।

খড়গপুর শিল্পাঞ্চলে অধিকাংশই তেলুগুভাষীদের বসবাস। তাঁদের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল, তেলুগুকে সরকারি ভাষা হিসেবে স্বীকৃতি দানের। সেখানকার বিধায়ক প্রদীপ সরকারও এ নিয়ে সরকারের কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন। সেই আবেদন মেনেই রাজ্য মন্ত্রিসভার এই সিদ্ধান্ত বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এ দিনের বৈঠক শেষে তিনি জানান যে, ওখানকার বাসিন্দাদের দীর্ঘদিনের দাবি মেনে তেলুগুকে সরকারি ভাষা হিসেবে ঘোষণা করা হচ্ছে। এ ছাড়া এই ভাষার নিরিখে তেলুগুভাষীরা এ রাজ্যে ভাষাগত সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের স্বীকৃতিও পেলেন। রাজ্য মন্ত্রিসভার এই সিদ্ধান্তে এতদিনের দাবি পূরণ হওয়ায় স্বভাবতই খুশি খড়গপুরের তেলুগুভাষীরা।

এ দিনের বৈঠক শেষে পার্থ চট্টোপাধ্যায় আরও জানান যে এর আগে রাজ্যে হিন্দি,উর্দু,নেপালি,গুরুমুখী,ওড়িয়া ভাষা ছিল সরকারি ভাষা। পরবর্তীতে তাতে সংযোজন করা হয় রাজবংশী,কামতাপুরি,সাঁওতালি ভাষা। আর এবার নয়া সংযোজন তেলেগু।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only