বৃহস্পতিবার, ৭ জানুয়ারী, ২০২১

বিদ্রোহ-বিশৃঙ্খলতায় জেরবার আমেরিকা



ওয়াশিংটন,৭ জানুয়ারি:­ক্যাপিটল হিল (পার্লামেন্ট ভবন)। আমেরিকার সর্বোচ্চ সম্মানীয় এবং শক্তিধর আইনি প্রতিষ্ঠান এটি। এতদিন যে প্রতিষ্ঠানটি মার্কিন গণতন্ত্রের আঁতুড়ঘর এবং সাংবিধানিক কেন্দ্র হিসাবে বিবেচিত হয়ে এসেছে সেই প্রতিষ্ঠানের মর্যাদায় ঐতিহাসিক আঘাত হানল প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের উন্মাদ সমর্থকরা। ক্যাপিটল হিলে শয়ে শয়ে রিপাবলিকান সমর্থক ঢুকে তাণ্ডব চালাল, গুলিও ছুড়ল। পার্লামেন্ট ভবনে চালানো এমন অপ্রত্যাশিত হামলায় নিহত হয়েছেন চারজন। আহত হয়েছেন বেশ কিছু মানুষ। কী থেকে এমন বেনজির হামলা? সকলের আঙুলই ট্রাম্পের দিকে। তাঁর উসকাানিতেই নাকি রিপাবলিকান সমর্থকরা উগ্র রুপ ধারণ করে এবং ক্যাপিটল হিলে হামলার দুঃসাহস পায়। অনেকে আবার এই ঘটনাকে ট্রাম্প প্রযোজিত অভু্যত্থান হিসাবেও দেখছেন। বিশ্লেষকরা বলছেন, নির্বাচনে হারার পর সাধারণ বুদ্ধি ও বিচার করার ক্ষমতা লোপ পেয়েছে ট্রাম্পের। তাই নিজের জয়ের দাবিতে উদ্ভট যুক্তি তুলে ধরে তাঁর সমর্থকদের তাতিয়ে তুলেছেন, এবং তার ফলস্বরুপ মার্কিন গণতন্ত্রের শীর্ষ প্রতিষ্ঠানে এই তাণ্ডব। এই ঘটনার পর ট্রাম্প অবশ্য তার সমর্থকদের শান্ত থাকতে বলেছেন। স্থানীয় সময় বুধবার রাতে এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ আধিকারিক রবার্ট কন্টে জানান,এক প্রাপ্তবয়স্ক মহিলা এবং দুই পুরুষ হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন। তবে নিহত ও আহতদের মধ্যে বেশিরভাগই ট্রাম্প সমর্থক বলে জানা গেছে। ইতিমধ্যেই, এই ঘটনার পর রাজধানী ওয়াশিংটনে ১২ ঘণ্টার কারফিউ জারি হয়েছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only