বৃহস্পতিবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০২১

হোয়াটস অ্যাপ নিরাপদ কীনা, জানতে আসরে কেন্দ্র

 


নয়াদিল্লি, ১৪ জানুয়ারি: হোয়াটস অ্যাপের নতুন প্রাইভেসি পলিসিতে আতঙ্কিত ইউজাররা। এই অবস্থায় আসরে নামল কেন্দ্র। জনপ্রিয় এই চ্যাটিং অ্যাপের নয়া পলিসি, কতটা নিরাপদ? তা খতিয়ে দেখবে কেন্দ্রের তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক।

সম্প্রতি নতুন প্রাইভেসি পলিসি সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে হোয়াটসঅ্যাপ। অ্যাপ্লিকেশনটি খোলা মাত্রই ফোনের স্ক্রিনে উপস্থিত হচ্ছে এক ইন স্ক্রিন নোটিফিকেশন। সেখানে স্পষ্ট বলা হয়েছে, তাদের শর্ত না মানলে ইউজারদের হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্টটি ডিলিট হয়ে যেতে পারে। জনপ্রিয় ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং অ্যাপ  হোয়াটস অ্যাপ তাদের  নীতি বদল করার ফলে আপনার মোবাইল নম্বর, ফোনের তথ্য, আইপি অ্যাড্রেস, গ্রাহকের বার্তা বিনিময়ের প্রকৃতি, লেনদেনের তথ্য, লোকেশন হিস্ট্রি এবং আরও একাধিক তথ্য তাঁরা তুলে দিতে পারে ফেসবুকের কাছে। আর এতেই অস্বস্তিবোধ করছেন বহু ইউজার। জনপ্রিয় ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং অ্যাপের বিকল্প খুঁজতে শুরু করেছেন তারা। এই অবস্থায় নড়েচড়ে বসেছে কেন্দ্র। তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, নয়া পলিসিতে আতঙ্কে ভুগছেন বহু মানুষ। তারমধ্যে ব্যবসায়ীদের ভাগটাই বেশি। সূত্রের খবর, খুব শীঘ্রই তারা ফেসবুক কর্তূপক্ষকে ডেকে পাঠাতে পারে। শুধু তাদেরকেই নয়। ডাকা হতে পারে ট্যুইটার কর্তূপক্ষকেও। তবে কতদিন পর তলব করা হতে পারে,সেটা এখনও নিশ্চিত নয়। 

গ্রাহকদের আশ্বস্ত করতে ইতিমধ্যেই মুখ খুলেছে হোয়াটস অ্যাপ কর্তূপক্ষ। তারা জানিয়েছে, অযথা ভয়ের দরকার নেই। ব্যক্তিগত তথ্য সম্পূর্ণ নিরাপদ। তবুও ইউজারদের আতঙ্ক কাটছে কই! অনেকেই ব্যক্তিগত নিরাপত্তার কথা ভেবে আশঙ্কায় রয়েছেন। এই অবস্থায় নড়েচড়ে বসল কেন্দ্রীয় তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রক।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only