বুধবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২১

পণের জন্য মৃত্যুর জেরে অভিযুক্তদের ৯ বছরের কারাবাসের সাজা

 


দেবশ্রী মজুমদার, বীরভুম,১৩ ই জানুয়ারিঃপণের কারণে মৃত্যুর জেরে অভিযুক্তদের ৯ বছরে কারাবাসের সাজা শোনালো রামপুরহাট দ্রুত নিষ্পত্তি সম্পন্ন দায়রা আদালত।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৪ সালের ৭ই মার্চ মুরারই থানার গুসকিরার বাসিন্দা সুমিত্রা সাউয়ের বিয়ে হয় ময়ুরেশ্বর থানার নন্দীগ্রামে সুমন মণ্ডলের সাথে। বিয়ের মাত্র ১ বছর ৩ মাসের মধ্যে গৃহবধূকে আগুনে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ ওঠে মৃতার শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে । অভিযোগ বিয়ের সময় যথাযথ পণ দেওয়ার পরেও ফের পণের দাবিতে বধূ নির্যাতন শুরু করে মৃতার স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন। তারা ২ লক্ষ টাকা দাবি করে বলে জানা গেছে। ২০১৫ সালের ৪ মে মৃতার ভাই অজয় সাউ সেই পণ কিছু পরিমাণ কমাতে মৃতার শ্বশুরবাড়ি যায়। কিন্তু তারা কোন কথা শুনতে চাননি বলে মৃতার পরিবার সূত্রে জানা যায়। তার একদিন পর অর্থাৎ 6 জুন স্বামী সুমন মণ্ডল, শ্বশুর বিশ্বনাথ মণ্ডল, শাশুড়ি উর্মিলা মণ্ডল তিন জনে মিলে ওই গৃহবধূকে পুড়িয়ে মারে বলে অভিযোগ। তারপর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় 8 জুন মারা যান গৃহ বধূ । ওই দিন মৃতার ভাই অজয় সাউ ময়ুরেশ্বর থানায় মৃতার স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়ির নামে অভিযোগ দায়ের করে। সপ্তাহ খানেক  পর অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হয়। ৯০ দিন পর তারা জামিনে মুক্ত হন।

সরকারি আইনজীবী সন্তোষ বন্দ‍্যোপাধ‍্যায় বলেন, রামপুরহাট দ্রুত নিষ্পত্তি সম্পন্ন দায়রা আদালতের বিচারক অনিরুদ্ধ মাইতি তিন অভিযুক্তকে ৪৯৮ এ বধূ নির্যাতন ও ৩০৪ বি পণে মৃত্যু ধারায় সাজা দেন। তিন জনকেই নারী নির্যাতনে ২ বছর ও পণে মৃত্যুর জন্য ৭ বছর জেল এবং পাশাপাশি ৫ হাজার টাকা জরিমানা করে আদালত।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only