শনিবার, ৯ জানুয়ারী, ২০২১

অষ্টম দফার বৈঠকেও কাটলো না জট,১৫ তারিখ সরকারের সঙ্গে ফের বৈঠক কৃষকদের




নয়াদিল্লি, ৮ জানুয়ারি: সাত দফা বৈঠকে ইতিবাচক কোনও ফল মিলেনি। কৃষিমন্ত্রী সাফ জানিয়ে ছিলেন, কৃষি আইনে কোন বদল হবে না। এই অবস্থায় অষ্টম দফার বৈঠকে কী হয়, সেদিকে নজর ছিল গোটা দেশের। শুক্রবারের বৈঠকেও মিলল না কোনও রফাসূত্র। নিজের অবস্থান থেকে নড়তে রাজি নয় দুই পক্ষই। ১৫ তারিখ হতে চলেছে ফের বৈঠক।


বৃহস্পতিবার নয়াদিল্লির বিজ্ঞান ভবনে বৈঠকে বসেন কৃষক ও কেন্দ্রের প্রতিনিধিরা। বেশ কিছুক্ষন চলে বৈঠক। এরপর কৃষক নেতারা সাফ জানিয়ে দেন, বিতর্কিত ৩ কৃষি আইন প্রত্যাহার করতে হবে। সরকার দাবি না মানলে আন্দোলন আরও বৃহত্তর করা হবে। পাল্টা কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর জানান, কৃষি আইন বাতিল হবে না। প্রয়োজনে সেই আইনে সংশোধন করা যেতে পারে। অল ইন্ডিয়া কিষান সভার সাধারণ সম্পাদক হান্নান মোল্লা জানিয়েছেন,"একটা সময় আলোচনা বেশ উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। আমাদের তরফে জানানো হয়েছে বিতর্কিত ৩ কৃষি আইন বাতিল করতে হবে। দাবি না মানলে আন্দোলন চলবে। ২৬ তারিখ আমাদের প্যারেড হবে।" অন্যদিকে কৃষিমন্ত্রী বলেন,"কৃষি আইন বাতিল করা ছাড়া আমরা যেকোন বিষয়ে আলোচনা করতে রাজি। এই বিষয়টি মানতে রাজি নয় কৃষকরা। তাই ১৫ তারিখ আমরা ফের আলোচনায় বসব।"


২৬ তারিখ ট্রাক্টর মিছিল করবেন কৃষকরা। এ প্রসঙ্গে হান্নান মোল্লা জানান, পরিকল্পনা মতো প্রজাতন্ত্র দিবসের দিন ট্রাক্টর মিছিল আয়োজন করা হবে। হাজার হাজার ট্রাক্টর তাতে অংশ নেবে। ভারতীয় কিষান ইউনিয়নের মুখপাত্র রাকেশ টিকাইত বলেন,"প্রত্যাহার না হওয়া পর্যন্ত কৃষকরা পিছু হটবে না। কেন্দ্র চায় আইন সংশোধন করতে। আমরা চাই কৃষি আইন প্রত্যাহার করা হোক।"


একমাস অতিক্রান্ত। দিল্লির উপকণ্ঠে কনকনে ঠান্ডায় আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন কৃষকরা। যদিও বুধবার কৃষি মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন বাবা লাখা সিং। তারপরই হঠাৎ করে তিনি লাইমলাইটে। আন্দোলনকারী কৃষকরা আইন প্রত্যাহারের দাবিতে অটল থাকলেও, সম্পূর্ণ ভিন্ন সুর তার গলায়। তিনি বলেন, "আমরা নতুন কোনও প্রস্তাব নিয়ে আসব। এই বিষয়ে সমাধান খুঁজে বের করবো।" এই পরিস্থিতিতে ১৫ তারিখের বৈঠকে কী হয়, সেদিকে নজর গোটা দেশের।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only