শুক্রবার, ১ জানুয়ারী, ২০২১

পুলিশ প্রশাসনের সহায়তায় স্মৃতিশক্তি ফিরে পেয়ে বাড়ি ফিরল সাহিদা



কৌশিক সালুই, বীরভূম ,১ জানুয়ারি:স্মৃতিশক্তি হারিয়ে বাড়িছাড়া হয়েছিলেন বেশ কয়েক মাস আগে। ভবঘুরে অবস্থায় নজর পরে পুলিশের। তাদের সহায়তায় জায়গা হয় হোমে। ইতিমধ্যেই চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে স্মৃতি শক্তি ফিরে আসে মনে পড়ে যায় বাড়ির কথা। প্রশাসনের সহায়তায় যোগাযোগ হয় বাড়ির আত্মীয় পরিজনদের সঙ্গে। বছরের শুরুতেই পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয় হারিয়ে যাওয়া সদস্যকে। খুশি সকলেই।


 সাহিদা বিবি। বাড়ি মুর্শিদাবাদ জেলার সুতি-২ ব্লকের জগতাই এক গ্রাম পঞ্চায়েতের দেবীপুর গ্রাম। ৯ মাস আগে স্মৃতিভ্রম হয়ে বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়ে যান ওই মহিলা। ঘুরতে ঘুরতে সে চলে আসে সাঁইথিয়া শহরে। ভবঘুরে স্মৃতি শক্তি হারিয়ে যাওয়া মহিলাকে নজরে আসে সাঁইথিয়া থানার। তারা তাকে উদ্ধার করে সিউড়িতে আশা হোমে পাঠিয়ে দেয়। সংখ্যাধিক্য থাকায় আশা হোম থেকে সিউড়ি ২ ব্লকের পুরন্দরপুর হোমে পাঠানো হয় তাকে । সেখান থেকেই ওই মহিলার মানসিক রোগের চিকিৎসা শুরু হয় সিউড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে। ইতিমধ্যেই সুস্থ হতে শুরু করে সাহিদা। পুরোপুরি স্মৃতিশক্তি ফিরে আসে তার। পরিবার-পরিজনদের নাম ঠিকানা সে জানিয়ে দেয় হোম কর্তৃপক্ষকে। প্রশাসন পরিবারের লোকজনের সঙ্গে যোগাযোগ করে। মা মানেকা বিবি দিদিভাই এবং অন্যান্য সদস্যরা সহিদাকে বাড়ি ফিরিয়ে নিয়ে যায়। মা মানেকা বিবি বলেন," বিয়ের সাত দিনের মাথায় স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাকে তাড়িয়ে দিয়েছিল। তারপর থেকেই মানসিকভাবে অসুস্থ হয়ে পরে সাহিদা। বাবার বাড়িতেই থাকতো মেয়ে। ন মাস আগে বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়ে যায়। প্রশাসন আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে। মেয়েকে সুস্থ অবস্থায় ফিরে পেয়ে বেশ ভালই লাগছে"।



সিউড়ী ২ ব্লকের যুগ্ম সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক সুদীপ কুমার বাসু বলেন," পুলিশের সহায়তায় হোমে ঠাঁই হয় ওই মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলার। চিকিৎসায় স্মৃতিশক্তি ফিরে আসে তারপর পরিবার-পরিজনদের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদের হাতে ফিরিয়ে দিয়েছি। পুরন্দর পুর আনন্দধারা স্বধারার হোমের সুপারিন্ডেন্ট আয়েসা সুলতানা বলেন," হোমের ত‍ৎপরতায় সাহিদা দীর্ঘ ৯মাস পর মায়ের কাছে ফিরে গেলো।মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ছিল তার"।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only