বুধবার, ৬ জানুয়ারী, ২০২১

তৃণমূল উপপ্রধানের দাদা খুনের ঘটনায় অভিযোগের তির বিজেপির দিকে

 



দেবশ্রী মজুমদার, রামপুরহাট, ০৬ জানুয়ারি: বীরভূমের রামপুরহাট-১ ব্লকের বড়শাল গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূল উপপ্রধানের দাদা খুনের ঘটনায় অভিযোগের তির বিজেপির দিকে। ঘটনাটি ঘটেছে রামপুরহাট থানার বড়শাল গ্রাম পঞ্চায়েতের বগটুই গ্রামের কবরস্থানের কাছে। 

জানা গেছে, মৃত বাবর সেখ (৩৮) বাবা মায়ের চতুর্থ সন্তান। তাঁর দুই সন্তান। তৃণমূল উপপ্রধান বাড়ির সব থেকে ছোট। মৃত ব্যক্তি ঠিকাদারি ব্যবসা করতেন। উপপ্রধান ভাদু সেখ বলেন, সামনে ১০ জানুয়ারী রামপুরহাট ১ ব্লকে অনুব্রত মণ্ডলের সভা আছে। সেই উপলক্ষে পাড়ায় পাড়ায় প্রচারের দায়িত্বে ছিল দাদা। সেই কারণে বিজেপি ও কিছু দুষ্কৃতীরা এই খুন করে। জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক ত্রিদিব ভট্টাচার্য বলেন, গোটা বগটুই গ্রাম তৃণমূলে চলে আসে ভাদু সেখ ও বাবর সেখের সংগঠনের জোরে। সেই কারণে তার উপর একটা পূর্ব আক্রোশ ছিল বিজেপির। পুলিশকে বলবো তদন্ত করে অপরাধীদের ধরা হোক। একইভাবে বড়শাল গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান শ্যামল সাহা এই ঘটনাকে রাজনৈতিক খুন বলেন। যদিও বিজেপি নেতা শুভাশীষ চৌধুরী এই অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এর সাথে বিজেপির কোন যোগাযোগ নেই। এটা সবাই জানে। গোষ্ঠী সংঘর্ষের ফলে এই মৃত্যু। 

 মৃতের বাবা মারফত সেখ বলেন, মঙ্গলবার রাত ৮:৩৫ টা নাগাদ গ্রামের কবরস্থানের কাছে মোটরসাইকেল চড়ে বাড়ি ফিরছিল । সেই সময় তাকে পিছনে গুলি করে দুষ্কৃতিকারীরা। কপাল ফুঁড়ে গুলি বেরিয়ে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় রামপুরহাটে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করে। এটা রাজনৈতিক খুন। দোষীদের শস্তি চাই। ইতিমধ্যে খুনের সন্দেহে ৫ জন ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। এই ঘটনার জেরে বুধবার রামপুরহাট থানায় ১৪ জনের নামে মৃতের পরিবারের তরফে অভিযোগ দায়ের করা হয়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only