বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

১০ দফায় ভোট চায় বিজেপি, ‘না’ কমিশনের

পুবের কলম প্রতিবেদক: বিজেপির পক্ষ থেকে রাজ্যে বিধানসভার ভোট ১০ দফায় করার দাবি জানালো হলেও তাতে সায় নেই নির্বাচন কমিশনের শীর্ষ আধিকারিকদের। বরং থেকে দফায় ভোট করানোর বিষয়টিকেই গুরুত্ব দিচ্ছেন তাঁরা। পাশাপাশি ভোট ঘোষণায় দেরি হওয়ার জন্য এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহের আগে ভোট শুরু করা যাবে না বলেও মনে করছেন নির্বাচন কমিশনের আধিকারিকরা। সেক্ষেত্রে এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহ থেকে মে মাসের মাঝামাঝি সময় ভোট করানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সূত্রের খবর, অবাধ নির্বিঘ্নে ভোটের জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের পর্যাপ্ত পরিমাণ আধা-সামরিক বাহিনী দিতে ব্যর্থ হওয়ায় বিভিন্ন রাজ্যের পুলিশকে কেন্দ্রীয় বাহিনী হিসেবে বিশেষ অধিকার দিয়ে পাঁচ রাজ্যে পাঠাতে চলেছে কমিশন।



পশ্চিমবঙ্গ, তামিলনাড়ু, কেরল, পুদুচেরি অসম বিধানসভার ভোট দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে। ওই পাঁচ রাজ্যের ভোট নিয়ে বুধবার সকাল সাড়ে এগারোটায় বৈঠকে বসেছিলেন নির্বাচন কমিশনের শীর্ষকর্তা আধিকারিকরা। মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরার নেতৃত্বে বসা বৈঠকে করোনার কালবেলায় বিহারের মতো কীভাবে ওই পাঁচ রাজ্যে নির্বিঘ্নে ভোট করানো যায়তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। কমিশন সূত্রে জানা গিয়েছেপশ্চিমবঙ্গে ছয় থেকে দফায়তামিলনাডুতে এক দফায়–  পুদুচেরিতে এক দফায়অসমে দুই থেকে তিন দফায় এবং কেরলে দুদফায় ভোট নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে পাঁচ রাজ্যে অবশ্য একইদিনে ভোট গণনা হবে। চলতি বছরে যে পাঁচ রাজ্যে বিধানসভা ভোট হওয়ার কথাতার মধ্যে বাংলায় বর্তমান বিধানসভার মেয়াদ শেষ হচ্ছে ৩০ মে। অসম বিধানসভার মেয়াদ শেষ হচ্ছে ৩১ মে। তামিলনাড়ু কেরল বিধানসভার মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা যথাক্রমে ২৪ মে জুন। আর সদ্য রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হওয়া পুদুচেরির মেয়াদ শেষ হচ্ছে জুন। পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা ভোট শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে পাঁচ রাজ্যে ভোটের নির্ঘণ্ট ঘোষণার আগেই আধাসামরিক বাহিনীর ২৫০০০ জওয়ানকে মোতায়েন করা হচ্ছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only