রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

মোদির নির্দেশে 'র' কর্তার ফোনেই অভিনন্দনের পাক–মুক্তি

নয়াদিল্লি: ২০১৯ সালের এই ২৭ ফেব্রুয়ারি দিনটিতেই পাকিস্তানের হাতে বন্দি ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানের রক্তাক্ত ছবি দেশে শিহরিত হয়েছিল গোটা দেশ সেই ছবি সামনে আসার পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নির্দেশে তৎকালীন ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা-এর কর্তা পাকিস্তানকে সরাসরি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছিলেন, ভারতীয় বিমান বাহিনীর পাইলটকে আঘাত করা হলে পাকিস্তানকে তার ফল ভুগতে হবে



বালাকোটে ভারতের সার্জিকাল স্ট্রাইকের ঠিক পর দিন ২৭ ফেব্রুয়ারি নিয়ন্ত্রণরেখা সংলগ্ন রাজৌরি-মেন্ধার সেক্টরে ভারতের আকাশসীমা লঙ্ঘন করে কয়েকটি পাকিস্তানি যুদ্ধবিমান তা দেখে মুহূর্তে উড়ে যায় ভারতীয় বায়ুসেনার দুটি মিগ-২১ যুদ্ধবিমান যার একটিতে ছিলেন অভিনন্দন বর্তমান তিনি পাকিস্তানি যুদ্ধ বিমানের হামলার চেষ্টা বানচাল করে দেন পাকিস্তান বিমান বাহিনীর একটি এফ-১৬ যুদ্ধ জেট ধ্বংস করে দেন এরপর অবশ্য অভিনন্দনের মিগ-২১ বিমানকে গুলি করে নামায় পাকিস্তান পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরের গ্রামবাসীরা তাঁকে বন্দি করে পাকিস্তানি মিলিটারিদের হাতে তুলে দেয় একটি ইংরেজি দৈনিক এই ঘটনা নিয়ে দিল্লি পাকিস্তানের পর্দার আড়ালে থেকে যাওয়া কিছু পদক্ষেপের পুনর্গঠন করেছে বলে দাবি করে তারা জানায় মার্চ ওয়াঘা-আটারি বর্ডার ফোর্সের কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে অভিনন্দন ঘরে ফেরেন যদিও পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছিলেন, ‘শান্তিমূলকর সৌজন্য হিসেবে অভিনন্দনকে ভারতের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে তবে ঘরে ফেরার আগে ৬০ ঘণ্টা পাকিস্তানের কবলে থাকতে হয়েছিল অভিনন্দনকে সেইসময় পাকিস্তানের তরফে বেশ কয়েকটি ভিডিয়ো পোস্ট করা হয়েছিল তাতে দেখানো হয়েছিল অভিনন্দন তাদের হেফাজতেই রয়েছে তার একটিতে দেখা গিয়েছিল অভিনন্দনের চোখ বাঁধা রয়েছে রক্তাক্ত তা সত্ত্বেও পাকিস্তান সেনা অফিসারের সব প্রশ্নের জবাব ধৈর্যের সঙ্গে ধীরভাবে শান্তভাবে দিচ্ছেন 

অভিনন্দনের এই রক্তাক্ত শরীরের ছবি দেখার পরই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দেশের গোয়েন্দা প্রধানকে বলেন, পাকিস্তানকে এই বার্তা দিতে যে অভিনন্দন বর্তমানের কোনও ক্ষতি করা হলে ভারত সরকারকে কিছুতেই কিন্তু থামানো যাবে না একইসঙ্গে অভিনন্দনকে দ্রুত মুক্তি দেওয়ারও দাবি জানানো হয় আর সেইসময় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সরাসরি বার্তা ছিলআমাদের অস্ত্রাগারগুলি দীপাবলির জন্য তুলে রাখা হয়নি অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রী সরাসরি যুদ্ধের হুমকি দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রীর এই বার্তাই-এর প্রধান অনিল ধাসমানা প্রেরণ করে দিয়েছিলেন পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইয়ের প্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল সৈয়দ অসিম মুনির আহমদ শাহকে অভিনন্দনের একটি ফোটোগ্রাফ দেখেই ভারত যে এতটা আক্রমণাত্মক হয়ে উঠতে পারে তা দেখে কার্যত হতভম্ব হয়ে যান মুনির

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only