সোমবার, ৮ মার্চ, ২০২১

বিদায়ী বিধায়করা টিকিট না পেয়ে পদ্ম শিবিরে

পুবের কলম প্রতিবেদক: কলকাতায় বিজেপির হেস্টিংস অফিসে চাঁদের হাট। তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে নাম লেখাতে এসেছেন একাধিক তৃণমূল নেতা। একে একে বিজেপির পতাকা হাতে নিয়ে দলবদল করলেন সকলে। নির্বাচনে টিকিট পাননি চারজন। সোনালি গুহ-সহ অন্যান্যরা বিজেপিতে যোগ দিলেন। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের মুখে এক প্রশস্ত হাসি। বিশ্ব নারী দিবসে প্রথমে বিজেপিতে যোগ দেন মহিলারা। অভিনেত্রী তনুশ্রী যোগ দিলেন। সরলা মুর্মূ ও সোনালি গুহ পরে যোগ দেন। এরপর যোগ দেন শিবপুরের তৃণমূল বিধায়ক জটু লাহিড়ী। সিঙুরের তৃণমূল বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য ও সাঁকরাইলের তৃণমূল বিধায়ক শীতল সর্দার। মাস্টারমশাইরা এবার কেউ তৃণমূলের হয়ে টিকিট পাননি। বিক্ষুব্ধ হয়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন তারা। সোনালি গুহকে আবার দেখা গেল দিলীপ ঘোষকে ঝুঁকে প্রণাম করতে। সোমবার বিজেপিতে যোগ দেন দক্ষিণ দমদম পুরসভার বিদায়ী পুরপ্রধান মৃগাঙ্ক ভট্টাচার্য।



সাংবাদিক সম্মেলন করলেন মহা সমারোহে দিলীপবাবু। মাস্টারমশাই রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্যসোনালি ঘোষরা বিজেপি প্রার্থী হবেন কী? এই প্রশ্ন এসেছে। দিলীপবাবু জানিয়েছেনদল সিদ্ধান্ত নেবে এই বিষয়ে। কোনও কথা এখনও হয়নি। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধেও আক্রমণ করেছেন তিনি। আগামী দিনে রাজ্যে বিজেপি সরকার প্রতিষ্ঠিত হবে। এই কথা মনে করছে নেতৃত্ব। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলের দীর্ঘ সময়ের কর্মীদের বিশ্বাস করতে পারেন না। তাই তাঁরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ছেড়ে চলে যাচ্ছেন। এই বক্তব্য করেছেন দিলীপ ঘোষ।

এদিন তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন মালদাহ জেলা পরিষদের সভাধিপতি গৌরচন্দ্র মণ্ডল-সহ জেলা পরিষদের ১৪ জন সদস্য। ফলে মালদাহ জেলা পরিষদ বিজেপির হয়ে গেল। ৩৮ আসনের এই জেলা পরিষদ। ২৩টি আসন এখন বিজেপির দখলে এল। আগে ৯ টি আসন ছিল বিজেপির। এছাড়াও পুরাতন মালদহ পঞ্চায়েত সমিতিও এসেছে বিজেপির দখলে। এই কর্মসূচিতে মুখ্য ভূমিকায় দেখা গিয়েছে শুভেন্দু অধিকারীকে। মুকুল রায়সব্যসাচী দত্ততথাগত রায়সায়ন্তন বসুরা এই যোগদান মেলায়উপস্থিত ছিলেন। প্রত্যেকেই এদিন বেশ ফুরফুরে মেজাজে রয়েছেন।

 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only