সোমবার, ৮ মার্চ, ২০২১

পশ্চিমবঙ্গ সহ দেশের ৭টি রাজ্যে আর্সেনিকের প্রকোপ বেশি

সেকুতুবউদ্দিন: সারা দেশের বিভিন্ন রাজ্যে গড়ে ২০ শতাংশ পানীয়তে ক্ষতিকারক আর্সেনিক রয়েছে। এ কথা জানিয়েছেন আইআইটি খড়্গপুরের গবেষকরা। বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার সঙ্গে কাজ করে এমন তথ্য পাওয়া গিয়েছে বলে জানান তাঁরা। সারা দেশের ২৫০ মিলিয়ন মানুষ আর্সেনিকের এই বিষে আক্রান্ত।

গবেষকরা অনুমান করছেন, ৮০ থেকে ৯০ শতাংশ জলই আগামীতে আর্সেনিকযুক্ত হতে পারে। সেই সম্ভাবনা এড়াতে সরকারকে এই বৃহত্তর উদ্যোগের মাধ্যমে বহু সংযুক্ত মানুষকে আর্সেনিক মুক্ত করতে হবে বলে জানিয়েছেন খড়্গপুরের ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির অধ্যাপক ড. অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়।


গবেষকদের মতে
, আর্সেনিক মোকাবিলার জন্য সরকারকে বিভিন্ন সংস্থার তরফে প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে একাধিক বার। কিন্তু তা নিরসনের জন্য বৃহত্তরভাবে কোনও উদ্যোগ সরকারি তরফে নেওয়া হচ্ছে না। এই গবেষণার বিষয়টি ভারতে আর্সেনিক এবং পরিবেশ নিয়ে গবেষণাপত্রটি আন্তর্জাতিক জার্নালেও প্রকাশিত হয়েছে।

 আর্সেনিক হচ্ছে আয়রনের বিষাক্ত অংশ। পানীয় জলের সঙ্গে মিশে থাকলে এই বিষাক্ত শরীরের মধ্যে প্রবেশ করলে বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা দেখা দেয়। হতে পারে চর্মরোগ। অন্যান্য অঙ্গপ্রত্যঙ্গে ক্ষতি হতে পারে বলে ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশনও জানিয়েছে।

এ রাজ্যের সব থেকে আর্সেনিক প্রবণ এলাকা ইন্দাস এলাকা। এছাড়া বহরমপুর এলাকার গঙ্গার তীরবর্তী এলাকায় বেশি আর্সেনিক দেখা যাচ্ছে।

অন্যান্য রাজ্যের মধ্যে পাঞ্জাবে ৯২ শতাংশ, বিহারে ৭০ শতাংশ, পশ্চিমবঙ্গে ৬৯ শতাংশ,  অসমে ৪৮ শতাংশ, হরিয়ানায় ৪৩, উত্তর প্রদেশে ২৮ এবং গুজরাতে ২৪ শতাংশ এলাকায় আর্সেনিক প্রবণ এলাকাগুলিকে ইতিমধ্যে চিহ্নিত করা হয়েছে।

 এর আগে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. তড়িৎ রায় চৌধুরি জানিয়েছেন সারা দেশের রাজ্যগুলিতে আর্সেনিক কবলিত এলাকা বহু রয়েছে। এতে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার মিলে বৃহত্তর উদ্যোগ নেওয়া জরুরি। তিনি বলেন,  ভাগীরথী নদীর উভয় তীরে জেলাগুলি এখন আর্সেনিক প্রবণ। এই এলাকার মানুষরা বছরের পর বছর ভয়াবহ আর্সেনিকের কুফল ভোগ করছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only