বুধবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২১

খোলা যাবে না মারকায মসজিদ কোর্টে ‘ডিডিএমএ’ জুজু দেখাল কেন্দ্র



পুবের কলম, নয়াদিল্লি:  আড়ম্বরের সঙ্গে চলছে কুম্ভস্নান করোনরাহটস্পট হয়ে ওঠার প্রবল সম্ভাবনা সত্ত্বেও জোরকদমে চলছে শাহী স্নান অন্যদিকে খোলার অনুমতি পাওয়ার মাত্র একদিন পরই ফের বন্ধ হতে চলেছে দিল্লির মারকায মসজিদ

একদিন আগেই দিল্লি হাইকোর্ট তার রায়ে বলেছিল নিজামুদ্দিন মারকায মসজিদ রোযার মাসে মুসল্লি রোযাদারদের নামাযের জন্য খুলে দেওয়া হবে আদালতের এই রায়ের ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই মঙ্গলবার দিল্লি হাইকোর্টকে কেন্দ্র দিল্লি পুলিশ জানিয়ে দিল এখনই নিজামুদ্দিন মারকায মসজিদ খোলা যাবে না আর এজন্য তারা দিল্লি ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট (ডিডিএমএ)-এর গাইডলাইনকে জুজু হিসেবে খাড়া করেছে কেন্দ্র দিল্লি পুলিশের তরফে আদালতকে বলা হয়েছে কোনও ধরনের জমায়েতেই অনুমতি দেওয়া যাবে না কারণ ডিডিএমএ ১০ এপ্রিল থেকেই তা নিষিদ্ধ করেছে এরপরই আদালতের পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কীভাবে এই নিয়মটি অনুসরণ করা হচ্ছে তার বিস্তারিত বিবরণ দিয়ে বৃহস্পতিবারের মধ্যেই একটি হলফনামা পেশ করার জন্য বিচারপতি মুক্ত গুপ্তা কেন্দ্রীয় সরকারের আইনজীবীর একটি বিবৃতিও রেকর্ড করেন যে মামলার পরবর্তী শুনানির দিন অবধি গত একবছর ধরে যেভাবে ব্যক্তি মসজিদে নামায পড়ে আসছেন তাতে কোনও অন্যথা হবে না তাঁদের নামায পড়ার অনুমতি বহালই থাকবে তবে আদালত রমযানের প্রথম দিন অর্থাৎ বুধবার মসজিদে নামাজিদের সংখ্যা বাড়ানোর বিষয়টি নাকচ করে দেয় একইসঙ্গে সোমবার দিল্লি পুলিশ কেন্দ্র সরকারের পক্ষ থেকে একটি আবেদন জমা দেওয়া হয়েছিল তাতে বলা হয়েছিল রমযানে মসজিদে নামাযের জন্য ২০০ জনের যে নামের তালিকা পুলিশ যাচাই করে দিয়েছিল তাদের মধ্য থেকে মাত্র ২০ জনকে নামাযে অনুমতি দেওয়া হোক যদিও সেই আবেদন খারিজ করে দিয়েছে দিল্লি হাইকোর্ট রোযার মাসে মসজিদে নামাযের জন্য দিল্লি ওয়াকফ বোর্ড যে পরিকল্পনার কথা জানিয়েছিল তা নিয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে মতামত জানাতে বলেছে উচ্চ আদালত সোমবার সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ মসজিদ কমিটির যৌথ টিম মসজিদ প্রদর্শনে গিয়েছিল কোনও জায়গায় মাদুর পাতা হবে তা চিহ্নিত করতে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কীভাবে নামায পড়া যায় তা নিয়েই এই পরিদর্শন হয়েছিল দিন দিল্লি ওয়াকফ বোর্ডের করা একটি পিটিশনের শুনানি ছিল সেখানে অনুরোধ করা হয়েছিল মারকায মসজিদে প্রবেশে যে বিধি-নিষেধ তা শিথিল করার জন্য উল্লেখ্য একবছর আগে মারকাযে তবলিগিদের জমায়েত থেকে করোনা সংক্রমণের অভিযোগ ওঠার পর থেকে মসজিদে প্রবেশে কড়া বিধি-নিষেধ জারি করা হয় কেন্দ্রের তরফের আইনজীবী তথা সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা আদালতে দাবি করেন সব ধর্মের জমায়েতই নিষিদ্ধ করা হয়েছে পালটা ওয়াকফ বোর্ডের আইনজীবী করলবাগের হনুমান মন্দিরের একটি ছবি তুলে ধরে বলেন সেখানে সামাজিক দূরত্ব না মেনেই দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে ভক্তরা মন্দিরে প্রবেশ করছে হরিদ্বারে ধর্মীয় জমায়েত নিয়েও প্রশ্ন তোলেন ওয়াকফের আইনজীবী তিনি বলেন অন্যদের ক্ষেত্রে ছাড় থাকলেও শুধু মুসলিমদের জন্য এই কড়াকড়ি কি আইনসম্মত?

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only