শনিবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২১

সিয়াম সহানুভূতি ও বদান্যতা প্রদর্শন করতে শেখায়



মাওলানা আবদুল মান্নান

 রমযান মাস: বরকত সৌভাগ্যের মাস নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহিওয়া সাল্লাম বলেনঃরমযান মাসআল্লাহ্র মাস (আততাগীর)

নবী করীম সা. রমযান মাসকে অত্যাধিক ভালোবাসতেন মাসের জন্য তিনি অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করতেন একদা নবী করীম সা. রমযান মাসের শুভাগমন আসন্ন হলে তিনি সাহাবীগণকে বলেন: ‘তোমরা কি কাউকে অভিনন্দন জানাবে? না কেউ তোমাদের অভিনন্দন জানাতে আসছে?’ বাক্যটি আল্লাহ্র রাসূল সা. তিনবার বলেন অতঃপর হযরত উমার রা. জিজ্ঞাসা করেন: ‘ইয়া রাসূলুল্লাহ্ সা.! হযরত জিবরাঈল . কি কোনও ঐশী বার্তা নিয়ে আগমণ করছেন? অথবা কোনও শত্রু বাহিনী কী আমাদের আঘাত করার জন্য অপেক্ষা করছে?’ উত্তরে তিনি সা. বলেনঃনা তোমরা মাহে রমযানকে অভিনন্দন জানাও সেও তোমাদের অভিনন্দন জানাতে আসছে জেনে রাখো রমযানের প্রথম রাতে মহান আল্লাহ্তায়ালা সমস্ত কিব্লামুখী আল্লাহ্র বান্দাহকে ক্ষমা করে দেন (আতারগীর ওয়াত তারহীব) 

 সিয়াম সহানুভূতির মাস সমাজে বিভিন্ন স্তরের মানুষ বসবাস করে কেউ ধনী আবার কেউ গরিব কেউ নিঃস্ব কেউ বা অনাথ ধনী ব্যক্তি সুবহে সাদেক থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত পানাহার করে ফলে সে গরিব-দুঃখীদের দুঃখ করা উপলব্ধি করতে শেখে রোযা ধনী ব্যক্তিদের সমাজের গরিব শ্রেণির লোকেদের প্রতি বদান্যতা দানশীলতার হাত প্রসারিত করতে শেখায় মহান আল্লাহ্ বলেনঃহে বিশ্বাসীগণ! তোমরা যা উপার্জন কর এবং আমি যা ভূমি হতে তোমাদের জন্য উৎপাদনকরে দিই তা থেকে যা উৎকৃষ্ট তা ব্যয় কর (সূরা বাকারাহ্আয়াতঃ ২৬৭)

স্বভাবতঃ নবী করীম সা. অধিক পরিমাণে দান খয়রাত করতেন কোনও সাহায্য প্রার্থী তাঁর দরবার থেকে শূন্য হাতে ফিরে যেতেন না তথাপি রমযান মাসের প্রতি গভীর ভালোবাসা তাঁকে দানশীলতায় মাসে সবার থেকে এগিয়ে রাখত

হযরত ইবনে আব্বাস রা. বলেন, ‘মানবজাতির মধ্যে নবী করীম সা. সর্বাপেক্ষা বড় দানশীল ছিলেন আর রমযান মাসে তাঁর দানশীলতা বায়ুর গতি বেগ থেকেও বেশি ছিল হযরত জিবরাঈল . যূন তাঁর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতেন তূন তিনি সর্বাধিক দানশীল হয়ে উঠতেন রমযান মাসে প্রতি রাতে জিবরাঈল . নবী করীম সা.-এর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতেন কখন তিনি নবী করীম সা-কে পবিত্র কুরআন পাঠ করে শুনাতেন, কখনও নবী করীম সা. পবিত্র কুরআন পাঠ করে তাঁকে শুনাতেন এভাবেই আল্লাহ্র রাসুল সা. মাহে রমযান উদ্যাপন করতেন(বুখারী)

রোযার বিনিময় হচ্ছে জান্নাত নবী করীম সা. বলেনঃযে ব্যক্তি এই মাসে একজন রোযাদারকে ইফতার করাবে, তার গুনাহসমূহ মাফ হয়ে যাবে এবং সে জাহান্নামের আগুন থেকে মুক্তি লাভ করবে (মুসলিম)

 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only