শনিবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২১

স্পেশাল গ্রাউন্ডে বদলি চেয়ে হাইকোর্টে মাদ্রাসা শিক্ষিকা

 


আসলাম হোসেন: স্কুল সার্ভিস কমিশনে স্পেশাল গ্রাউন্ডে বদলির নিয়ম রয়েছে অথচ একই রাজ্যে মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের দ্বারা নিযুক্ত শিক্ষকদের ক্ষেত্রে এই ধরনের কোনও নিয়ম নেই তাই মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনের শিক্ষকের ক্ষেত্রেও স্পেশাল গ্রাউন্ড করা হোক এই আর্জি জানিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন মাদ্রাসার এক শিক্ষিকা

ওই শিক্ষিকার নাম সাবিনা ইয়াসমিন তিনি রাজারহাটের বাসিন্দা কিন্তু তিনি শিক্ষকতা করেন বাড়ি থেকে ৭৫০ কিলোমিটার দূরে আলিপুরদুয়ার জেলার একটি মাদ্রাসায় বাদায়তারি উজিরিয়া জুনিয়ার হাইমাদ্রাসায় দীর্ঘদিন ধরেই তিনি সেখানে শিক্ষকতা করছেন তবে তাঁর সন্তান দুরারোগ্য ব্যধিতে আক্রান্ত ভেলোর, বেঙ্গালুরু এবং আমরি তিনটি জায়গায় চিকিৎসা চলছে ফলে বাড়ি থেকে এত দূরে কাজ করে সন্তানকে ঠিকমতো দেখাশোনা করতে পারছেন এই অবস্থায় বাড়ির কাছাকাছি কোনও মাদ্রাসায় বদলি হতে চাইছেন ওই শিক্ষিকা কিন্তু মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনে স্পেশাল গ্রাউন্ড না থাকায় তিনি বদলি হতে পারছেন না ওই শিক্ষিকার আইনজীবী এক্রামুল বারি জানান, সাধারণত কোনও শিক্ষিকার সন্তান দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত হলে সেক্ষেত্রে স্কুল সার্ভিস কমিশনে স্পেশাল গ্রাউন্ডে ট্রান্সফারের ব্যবস্থা রয়েছে কিন্তু মাদ্রাসায় ধরনের কোনও নিয়মই নেই ফলে তাঁর মক্কেল স্পেশাল গ্রাউন্ডের জন্য আবেদন করতে পারছেন না আইনজীবীর যুক্তি, মাদ্রাসা স্কুল সার্ভিস কমিশনের শিক্ষকতার কোনও পার্থক্য নেই তাছাড়াও সিলেবাসও এক তারপরেও বৈষম্য করা হয়েছে যা সংবিধানের ১৪ ধারার বিরোধী

আইনজীবীর এই যুক্তির পর মামলাটি গ্রহণ করেন বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসু এর ভিত্তিতে আদালত মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনকে আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে হলফনামা জমা দিতে বলেছে সপ্তাহ পরে মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছে আদালত  

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only