সোমবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২১

জনসংখ্যার বিচারে মুসলিমরা কোনও দিনই হিন্দুদের ছাপিয়ে যাবে না: প্রাক্তন মুখ্য কমিশনার



 পুবের কলম, নয়াদিল্লি: কট্টর ধর্মান্ধ হিন্দুত্ববাদীরা প্রায়শই দাবি করে থাকেন, দেশে যেভাবে মুসলিম জনসংখ্যা বাড়ছে তাতে অদূর ভবিষ্যতে জনসংখ্যার নিরিখে হিন্দুরাই ভারতে সংখ্যালঘু হয়ে পড়বেযুক্তিহিসেবে তারা বলে থাকে, মুসলিমরা একাধিক বিয়ে করে, একাধিক সন্তান জন্ম দেয় ধর্মান্ধ হিন্দুত্ববাদীদের এই অভিযোগকে সপাটে উড়িয়ে দিয়েছেন প্রাক্তন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার এস ওয়াই কুরেশি যুক্তি-তথ্য-পরিসংখ্যান পেশ করে তিনি দেখিয়ে দিয়েছেন, মুসলিমদের একাধিক বিয়ে, একাধিক সন্তানের তত্ত্ব সম্পূর্ণ অমূলক তিনি জোর দিয়ে বলেছেন, কোনও দিনই দেশে মুসলিমদের জনসংখ্যা হিন্দুদের ছাপিয়ে যাবে না তাই হিন্দুদের সংখ্যালঘু হয়ে পড়ার আশঙ্কা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন

জনসংখ্যার নিরিখে মুসলিমরা একদিন হিন্দুদের ছাপিয়ে যাবে বলে যে অপপ্রচার চলছে, তা খণ্ডন করতে প্রাক্তন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার এস ওয়াই কুরেশি সেনসাস সহ একাধিক সরকারি তথ্য পরিসংখ্যান তুলে ধরেছেন কুরেশি বলেন, যেভাবে বলা হচ্ছে মুসলিমরা জনসংখ্যায় হিন্দুদের ছাপিয়ে যাবে, এটা দক্ষিণপন্থী হিন্দুত্ববাদী মানসিকতার প্রতিফলন বহু দশক ধরে এই ধরনের কথা চলে আসছে কিন্তু কাউকে কখনও এই বক্তব্যকে সেভাবে চ্যালেঞ্জ করতে দেখা যায়নি ফলে এই ধারণা সহজেই বহু হিন্দুর মনে গভীরভাবে গেঁথে গিয়েছে

কুরেশি জানান, ভারতের জনসংখ্যার সত্য কাহিনি উন্মোচন করতে একাধিক তথ্য পরিসংখ্যানের সাহায্য নিয়েছেন কুরেশির ডকুমেন্টরি, ‘জনসংখ্যা মিথঃ ইসলাম পরিবার পরিকল্পনা ভারতীয় রাজনীতিতে তিনি বলেছেন, ভারত সহ কোনও দেশেই জনসংখ্যা চিরকাল বৃদ্ধি পাবে না আর্থ সামাজিক অগ্রগতির সঙ্গে সঙ্গে কোনও দেশের জন্ম মৃতু্যর হার ক্রমাগত হ্রাস পায় যতক্ষণ না বৃদ্ধি স্থিতিশীল হয় প্রতিটি দেশ জনসংখ্যার স্থিতিশীলতার একটি অবস্থায় পৌঁছে যাবে যদিও তার গতি ভিন্ন হতে পারে ভারতে কট্টর হিন্দুত্ববাদীরা একটি প্রচার চালায় যে, মুসলিম পুরুষরা একাধিক স্ত্রী রাখে যাতে তারা একাধিক সন্তান ধারণ করতে পারে হিন্দুদের দেশে সংখ্যালঘু করে দেওয়ার জন্য ধর্মান্ধ হিন্দুত্ববাদীদের এই ধারণা হাস্যকর

২০২০ সালেই ভারতে প্রতি হাজার পুরুষ প্রতি ৯২৪ জন মহিলা রয়েছে অর্থাৎ পুরুষ-মহিলা অনুপাত পর্যন্ত সমান নয় এই পরিস্থিতিতে মুসলিম পুরুষদের পক্ষে বহুবিবাহ মোটেই সম্ভব নয় আর যদি এমনটা হয়েও থাকে তাহলেও বলতে হবে মুসলিম জনসংখ্যা বৃদ্ধি ঋণাত্মকই হবে কারণ সেক্ষেত্রে বহু মুসলিম পুরুষ অবিবাহিত থেকে যাবে তবে এটা ঠিক যে, দেশে অন্যান্য সম্প্রদায়ের মধ্যে মুসলিমদের জন্মের হার বেশি ছিল তবে গত তিন দশক ধরে হিন্দুদের তুলনায় মুসলিমদের জন্মের হার কম   

 

 

 

 

 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only