বৃহস্পতিবার, ২৯ এপ্রিল, ২০২১

জরিপে প্রেসিডেন্ট এরদোগান আরব দুনিয়ারও সবথেকে জনপ্রিয় নেতা

 


তুরস্ক, ২৯ এপ্রিল : নিজ দেশে জনপ্রিয়তা অল্প কিছু কমলেও তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান এখন আরববিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা। দা ফিন্যানসিয়াল টাইমস পত্রিকা গত সপ্তাহের আরব ব্যারোমিটারের তালিকাকে উদ্ধৃত করে বলেছে, মধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা হলেন এরদোগান। এই খ্যাতনামা গবেষণা কেন্দ্রেটি ধারাবাহিকভাবে যে তালিকা প্রকাশ করেছে তাতে প্রেসিডেন্ট এরদোগান সবার শীর্ষে অবস্থান করছেন। আরব ব্যারোমিটারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তালিকা তৈরিতে যে নির্বাচন হয়েছে তাতে ২০ হাজারের বেশি মানুষ অংশ নিয়েছেন। দা ফিন্যানসিয়াল টাইমস পত্রিকাটি এই তুর্কি নেতার লৌহকঠিন দিকগুলোও তুলে ধরেছেন। এরদোগান উসমানীয় বা অটোমান খিলাফতের উদ্দীপনা নিয়ে বিভিন্ন যুদ্ধে জড়িয়ে পড়তে ইতঃস্তত করেননি। এরদোগান ২০১৬ সাল থেকে পর্যন্ত উত্তর সিরিয়ার চারটি অঞ্চল দখল করেছেন। লিবিয়াতেও সেনা যুদ্ধ সরঞ্জাম প্রেরণ করেছেন। এসব বিষয়ে হস্তক্ষেপের পরও তিনি সব সময়ই আরব-বিশ্বের জনপ্রিয় নেতাদের তালিকার শীর্ষে অবস্থান করছেন।

এই পত্রিকাটির জরিপে আরও বলা হয়েছে, যদিও অঞ্চল এক সময় উসমানীয় খিলাফতের অধীনে ছিল, তবুও সৌদি আরব ইরানের মতো ধর্মভিত্তিক দেশের তুলনায় এরদোগানের তুরস্ককে সবাই বেশি মর্যাদা দেয়।

আরব বিশ্বের স্বৈরাচারী শাসক বাদশাহরা এখন শক্তিহীন হয়ে পড়েছেন। আর মানুষের সঙ্গে থাকা শাসকদের প্রতি জনগণের দুর্বলতা রয়েছে। দা ফিন্যানসিয়াল টাইমস ক্ষেত্রে পরলোকগত মিসরীয় নেতা গামাল আবদুল নাসেরের উদাহরণ দিয়েছে। এই নেতা সামরিক অভিযান আরব জাতীয়তাবাদের মাধ্যমে তার অনুরাগীর সংখ্যা বাড়িয়েছিলেন। একইভাবে প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগানের শাসনামলে তুরস্ক গত বছর সিরিয়া ইরাকের কুর্দি সশস্ত্র যোদ্ধাদের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়েছে, লিবিয়াতে আমিরাত সমর্থকদের বিরুদ্ধে বিরোধী পক্ষকে অস্ত্র সেনা দিয়ে মদদ দিয়েছে এবং পূর্ব ভূমধ্যসাগরে অধিকার নিয়ে গ্রিস সাইপ্রাসের সঙ্গে সংঘাতে জড়িয়েছে। এছাড়া আরমেনিয়ার সঙ্গে যুদ্ধে আজারবাইজানকে পরোক্ষে সব ধরনের সহযোগিতা দিয়েছে। আর আজারবাইজান এই যুদ্ধে আরমেনিয়াকে পরাস্ত করেছে।

পত্রিকাটি আরও বলছে, এছাড়াও এরদোগান তার সাংস্কৃতিক শক্তিকেও ব্যবহার করছেন। তিনি বিভিন্ন ঐতিহাসিক উসমানীয় চরিত্র নিয়ে ইসলামপ্রভাবিত নাটক সিনেমা তৈরি করেছেন। এগুলি মুসলিম বিশ্বে বিপুলভাবে জনপ্রিয় হয়েছে। আর এতে লাভবান হয়েছেন এরদোগান-ও। তিনি হাজিয়া সোফিয়াকে ফের মসজিদে রূপান্তরিত করেছেন। এছাড়া তুর্কি জাতি, সুন্নী মজবুত ইসলামি জাতীয়তাকে শক্তিশালী করেছেন। এখন বিষয়গুলো এরদোগানের শাসনের বৈশিষ্ট্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান আরব-বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন।

 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only