শনিবার, ৮ মে, ২০২১

তৃণমূলের সঙ্গে গোপনে যোগাযোগ ১৭ বিধায়কের! দল ভাঙার আশঙ্কায় শঙ্কিত রাজ্য বিজেপি

 




পুবের কলম ওয়েবডেস্ক সময়টা কিছুতেই ভালো যাচ্ছে না বঙ্গ বিজেপির নীল বাড়ির কুর্সি দখলের যুদ্ধে মুখ থুবড়ে পড়তে হয়েছে অধরা থেকে গিয়েছে বাংলা দখলের স্বপ্ন তার মধ্যেই দলের অন্দরে কানাঘুসো শুরু হয়েছেসদ্য ভোটে নির্বাচিত একাধিক বিধায়ক পা বাড়িয়ে রয়েছেন শাসকদল তৃণমূলের দিকে ফলে কিছুটা হলেও শঙ্কিত বঙ্গ বিজেপির শীর্ষনেতৃত্ব তাঁদের প্রাথমিক হিসেব বলছেকমপক্ষে ১৭ বিধায়ক যেকোনও মুহূর্তে ডিগবাজি খেতে পারেন শুধু তাই নয়সন্দেহের তালিকায় রয়েছেন দুই সাংসদও তৃণমূলে যাতে ওই বিধায়ক-সাংসদরা না যানতার জন্য কী পদক্ষেপ নেওয়া হবেতা ভেবেই পাচ্ছেন না দিলীপ ঘোষ-কৈলাস বিজয়বর্গীয়রা যদিও শুক্রবার বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ সাংবাদিকদের কাছে দল ভাঙার সম্ভাবনা সপাটে উড়িয়ে দিয়েছেন

রাজ্য বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছেতৃণমূল কংগ্রেস থেকে যাঁরা রাজনৈতিক ডিগবাজি খেয়ে বিজেপিতে এসেছিলেনতাঁদের মধ্যে অনেকেই বিজেপির শীর্ষনেতৃত্বের কাজকর্মে খুশি নন পুরো ভোটপর্বে যেভাবে দুই দলবদলু রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে অমিত শাহ জে পি নাড্ডারা মাতামাতি করেছেনতা অনেকেই হজম করতে পারেননি তাছাড়া অনেকেই ভেবেছিলেন রাজ্যে ক্ষমতায় আসছে বিজেপি ফলে ক্ষমতার কাছাকাছি থাকার জন্য অনেকেই মুখ বুজে থেকেছিলেন কিন্তু বিধানসভা ভোটে পদ্ম শিবির ধরাশায়ী হতেই আগামী পাঁচ বছর নিজেদের রাজনৈতিক জীবন সুনিশ্চিত এবং সুরক্ষিত থাকতে ফের রাজনৈতিক ডিগবাজি খাওয়ার জন্য মানসিকভাবে প্রস্তুতি নিয়েছেন অনেক বিধায়কই

সূত্রের খবরউত্তর ২৪ পরগনাপূর্ব মেদিনীপুরপুরুলিয়াবাঁকুড়ামালদাকোচবিহারআলিপুরদুয়ার নদিয়ার বেশ কয়েকজন বিজেপি বিধায়ক ইতিমধ্যেই শাসকদলের শীর্ষ নেতৃত্বকে দলে যোগ দিতে চেয়ে বিশেষ বার্তা পাঠিয়েছেন ভোটের ফলাফল প্রকাশের দিন বিজেপির এক শীর্ষনেতা প্রথমে শাসকদলের সর্বোচ্চ নেতৃত্বের কাছে বিশেষ বার্তা পাঠিয়েছিলেন ওই বার্তা পাওয়ার পরেই সোমবার খোদ তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিষয়ে প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে বলেছিলেনযাঁরা ফিরতে চায়ফিরুক না কে আটকাচ্ছে?

দলের বিধায়কদের একাংশকে যে ধরে রাখা যাবে নাতা বুঝে গিয়েছেন বঙ্গ বিজেপির শীর্ষনেতারা কারা-কারা সম্ভাব্য দলত্যাগীতার একটা তালিকাও তৈরি করেছেন তাঁরা সূত্রের খবরওই বিধায়কদের গতিবিধির উপরে বিশেষ নজর রাখাও হয়েছে রাজ্য বিজেপির এক শীর্ষনেতার কথায়একে বলে ভাগ্যচক্র এক সময়ে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উদ্বেগে ছিলেনভোটের পরে তাঁর দলের বিধায়করা দল ভেঙে বিজেপিতে নাম লেখাতে পারেন আর আজ আমাদের বিধায়কদের ধরে রাখার জন্য উদ্বেগের নিশি কাটাতে হচ্ছে

বিজেপিতে ভাঙনের জল্পনায় শুক্রবার ইন্ধন জুগিয়েছে বেশ কয়েকটি ঘটনা প্রথমত বিধায়ক হিসেবে শপথ নিতে এসে বিজেপি বিধায়কদের জন্য নির্দিষ্ট ঘরে না গিয়ে তৃণমূলের পরিষদীয় দলের ঘরে হাজির হয়েছিলেন মুকুল রায় এমনকী শপথ নেওয়ার পরে বিধানসভা ভবন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময়ে তিনি নিজেই যেচে সাংবাদিকদের জানানতৃণমূলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সির সঙ্গে কথা হয়েছে বিজেপি বিধায়কদের নিয়ে দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের ডাকা বৈঠকেও যোগ দেননি বিধায়ক হিসেবে শপথ নিতে আসেননি দিনহাটার বিধায়ক নিশীথ প্রামাণিকশান্তিপুরের বিধায়ক জগন্নাথ সরকার বাগদার বিধায়ক বিশ্বজিৎ দাস যা নিয়েও জোর জল্পনা ছড়িয়েছে যদিও বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের দাবিনিজেদের বিধানসভা এলাকায় আক্রান্ত দলীয় কর্মীদের পাশে থাকতেই ওই তিন বিধায়ক দিন শপথ নেওয়ার জন্য আসতে পারেননি এর পিছনে অন্য কোনও কারণ নেই

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা মনে করছেনদলের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে যাঁদের যোগাযোগ অর্থাৎ আদি নেতা সংঘের মতাদর্শে বিশ্বাসীতাঁদের বাদে বাকিদের ধরে রাখাটা বিজেপি নেতৃত্বের কাছে বড় চ্যালেঞ্জ যে রাজনৈতিক টোপ গিলে বিজেপিতে শামিল হয়েছিলেন তৃণমূলিরাসেই একই রাজনৈতিক টোপ গিলে ফের বিজেপি থেকে শাসকদলে পা বাড়াতে পারেন তাঁরা সঙ্গে বেশকিছু পুরনো বিজেপি নেতাদেরও টেনে আনতে পারেন শেষপর্যন্ত বিজেপিতে কতটা ভাঙন ধরেকতজন বিধায়ক দল ছেড়ে যান এবং কবে যানতার দিকে নজর রাজ্যের রাজনৈতিক মহলের


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only