বুধবার, ৫ মে, ২০২১

বাংলা পথ দেখিয়েছে বিজেপিকে পরাস্ত করা প্রয়োজন এবং তা সম্ভব : মমতা

 


পুবের কলম ওয়েবডেস্ক: এনডিটিভিকে পশ্চিমবাংলার নির্বাচন-জয়ী মুখ্যমন্ত্রী এবং তূণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়  সদ্য একটি সাক্ষাৎকার দিয়েছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এনডিটিভিকে বলেন,বাংলার নির্বাচন প্রমাণ করেছে যে বিজেপিকে পরাজিত করা সম্ভব। বাংলার জনগণ সারা দেশকে পথ দেখিয়েছে। তিনি আরও বলেন, বিজেপিকে এবার রাজনৈতিক অক্সিজেন নিতে হবে।

মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতার জন্য কেন্দ্রের শাসক বিজেপিকে দায়ী করেন। তিনি বলেন, এই পরাজয়ের পর বিজেপি এখন এইসব কাণ্ড কারখানা ঘটাচ্ছে।

মমতা বলেন, এই হাঙ্গামা বিজেপিরই সন্তান।তারাই পরিস্থিতির অবনতি ঘটিয়েছে। কিছু বিক্ষিপ্ত হাঙ্গামার ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু এগুলিকে আমরা দমন করব। আমি কোথাও সহিংসতা চাই না। বিজেপি সাম্প্রদায়িক সংঘর্ষ বাধাবার চেষ্টা করছে, কারণ তাদের লজ্জাজনক পরাজয় ঘটেছে। মমতা আরও বলেন, তিনি তাঁর সমর্থকদের কাছে আবেদন করেছেন যে তাঁরা যেন ঘরের ভেতরে থাকে এবং দলের বিজয় উদযাপনের জন্য রাস্তায় বের না হয়।

মমতা আরও বলেন, ''বিজেপি তাদের বিশ্বাসযোগ্যতা হারিয়েছে। এখনও রাজ্যের আইন-শূঙ্খলা দেখছে কেন্দ্রীয় বাহিনী, আমি নই। আইন-শূঙ্খলার অবনতি ঘটলে, তার দায়িত্ব তাঁদেরই নিতে হবে। যদি সত্যিই আইন-শূঙ্খলার অবনতি ঘটে থাকে, তবে অবস্থার অবনতির জন্য তাঁরাই দায়ী।''

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বাংলায় সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা সূষ্টির অপচেষ্টা করার জন্য বিজেপিকেই দায়ী করছেন। বিশেষ করে সেই এলাকাগুলিতে, যেখানে বিজেপি জয়ী হয়েছে।

সমস্ত ভবিষ্যৎ বাণী এবং এক্সিট পোলের ফলাফলকে উড়িয়ে দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ২১৩টি আসনে জয়ী হয়েছেন। আর বিজেপিকে থমকে যেতে হয়েছে দুই অঙ্কের ৭৭টি আসনে।

সাক্ষাৎকারে মমতা বলেন, বিজেপিকেও অনায়াসেই হারানো যায়। আর দিনের শেষে উজ্জ্বল হয়ে ওঠে গণতন্ত্র, আর জনগণের পছন্দই প্রধান হয়ে ওঠে। মানুষই পথ দেখিয়েছে। গণতন্ত্রে কখনই রূঢ় স্পর্ধা প্রদর্শন ও নির্লজ্জ অহংকার দেখানো উচিৎ নয়। নির্বাচন কমিশনকে আমি অনুরোধ করব, রাজধর্ম পালন করুন এবং শুধু বিজেপিকেই সমর্থন না করে সব রাজনৈতিক দলকে সমান সুযোগ দিন। নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে তূণমূলের অভিযোগ, কমিশন বৈষম্য করছে ও একপেশে মনোভাব নিয়ে কাজ করছে। এই প্রেক্ষাপটে মমতা এনডিটিভি-কে উপরোক্ত কথাগুলি বলেন।

মমতা বলেন, ''বিজেপি একটি সাম্প্রদায়িক দল। তারা হচ্ছে গোলমাল পাকানোতে ওস্তাদ। তারা ফেক ভিডিয়ো তৈরি করছে।  ক্ষমতার অপব্যবহার করছে। বিজেপি দেশের যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামো ধ্বংস করতে বদ্ধপরিকর।''

মমতা আরও বলেন, ''বিজেপি 'সবার জন্য ভ্যাকসিন' নীতিকে কার্যকর করতে দিচ্ছে না।তারা রোগীদের অক্সিজেন দিচ্ছে না।আমার মনে হয়, এই দলটির এখন নিজেদেরই অক্সিজেন দরকার। তাদের রাজনৈতিক অক্সিজেনের খুব বেশি প্রয়োজন। জনগণের এখন ঐক্যবদ্ধ হয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করা দরকার। বিজেপির 'এজেন্সি রাজনীতি' (নিজেদের প্রয়োজন সিবিআই, ইডি প্রভূতি এজেন্সিকে ব্যবহার) বন্ধ হওয়া উচিৎ। আর তা হলেই নরেন্দ্র মোদি ও অমিত শাহের রাজনৈতিক যুগের অবসান ঘটবে।এমনকী বিজেপির পুরনো সদস্যরাও নরেন্দ্র মোদি-অমিত শাহের রাজনৈতিক কার্যকলাপকে প্রত্যাখান করছে।  এই ধরণের রাজনীতিকে দেশ আর সহ্য করতে পারছে না। মোদি এবং অমিত শাহের থেকেও অনেক ভালো ভালো প্রার্থী রয়েছেন''।

 মমতা বলেন, ''বিরোধীদের একটি 'কমন মিনিমাম প্রোগ্রাম' তৈরি করা উচিৎ। কিন্তু এখন আমাদের কোভিড নিয়ে সর্বাত্মক যুদ্ধ করতে হবে। অন্যদিকে বিজেপি সর্বাত্মক বিপর্যয় চাইছে। দেশ এই বিপর্যস্ত অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে চাইছে।'' মমতা এনডিটিভি-কে বলেন, ''আমি আমাদের এই বিজয়কে জনগণের সঙ্গে ভাগ করে নিচ্ছি। আমি এই বিজয়কে জনগণের উদ্দেশে উৎসর্গ করছি''।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only